এম.সাইফুল ইসলাম, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি •


জেলার দীঘিনালা উপজেলার মেরুং ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ৯ মাইল এলাকায় ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষনের পর হত্যা করা হয়েছে। শনিবার রাত ১১টায় বাড়ির পাশের পাহাড়ী ছড়া থেকে স্থানীয়দের সহায়তায় লাশ উদ্ধার করে দীঘিনালা থানা পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ধর্ষণের শিকার ছাত্রী নয়মাইল ত্রিপুরাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছাত্রী। দুপুরের স্কুল বিরতিতে সে বাড়িতে আসে। এর পর থেকে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। ছাত্রীর মা পাহাড়ে চাষাবাদ থেকে ফিরে বাড়ি এসে মেয়েকে না দেখে খুঁজতে থাকেন। পরে রাত ১১টায় বাড়ির পাশের ছড়া থেকে রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। ধর্ষণকারীরা মেয়েটি দুই হাত কনুই বরাবর ভেঙে দিয়েছে। এ ছাড়া মেয়েটি গোপনাঙ্গসহ একাধিক স্থানে জখমের চিহ্ন পাওয়া গেছে। মেরুং ইউনিয়নের মেম্বার ঘনশ্যাম ত্রিপুরা জানান, শনিবার দুপুরের পর থেকে মেয়েটি নিখোঁজ। রাত সাড়ে ১০টায় বিষয়টি দীঘিনালা থানা পুলিশকে জানানো হয়। পরে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। দীঘিনালা থানার ওসি মো. আব্দুস সামাদ জানান, স্থানীয় ইউপি সদস্য শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় মেয়েটি নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি অবগত করেন। পরে ভিকটিমের বাড়ির ১৫০ ফুট নিচে একটি ছড়া থেকে রাত সোয়া ১১টার দিকে লাশ উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে। ওসি জানান, বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। খাগড়াছড়ি-দীঘিনালা-বাঘাইছড়ি-লংগদু সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঘটনাস্থলে আইনশ্ঙ্খৃলা বাহিনী নিরাপত্তা জোরদার করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *