ভিন্নমতের জন্য কাউকে হত্যার অধিকার নেই: কাদের

Spread the love

অনলাইন ডেস্ক: বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ভিন্নমতের বলে মেরে ফেলবে! ভিন্নমতের জন্য একজন মানুষকে মেরে ফেলার অধিকার কারও নেই। আবরারের খুনিদের অবশ্যই খুঁজে বের করা হবে।

সোমবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। হত্যাকাণ্ডে ছাত্রলীগের নাম আসা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আইন তার নিজস্ব গতিতে চলছে। তদন্ত চলছে। তদন্তে যারা দোষী সাব্যস্ত হবে, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থায় কোনো ভিন্নমত নেই।

গত ৫ অক্টোবর ফেসবুকে দেওয়া সর্বশেষ পোস্টে আবরার ভারত ও বাংলাদেশের সাম্প্রতিক কয়েকটি চুক্তির সমলোচনা করেন। এ চুক্তি অনুযায়ী ফেনী নদী থেকে পানি প্রত্যাহারে ভারতকে অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশ। বিএনপি এসব চুক্তির সমলোচনা করছে। এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ভিন্নমত পোষণ করে বলে বিএনপি বলছে- ভারত সফরে দেশ বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। তাই বলে কি বিএনপিকে মেরে ফেলব? বিএনপির যে নেতারা এসব বলছেন, তাদের কি মেরে ফেলব?’

ওবায়দুল কাদের জানান, আবরার হত্যার বিষয়ে পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী সংবাদ সম্মেলন শুরুর আগেই তার সঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি আইজিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলতে বলেছেন। ওবায়দুল কাদের জানান, তিনি আইজিকে বলেছেন, ‘কোন আবেগ ও হুজুগে কারা আবরারকে হত্যা করেছে, অবশ্যই খুঁজে বের করা হবে।’

চলমান জুয়াবিরোধী অভিযান প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শুদ্ধি অভিযান’ চলতে থাকবে এবং আরও বড় চমক আছে। ১৫ দিনে অভিযান শেষ হয়? আরও অনেক কিছু দেখার আছে। বহিস্কৃত যুবলীগ নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট ও এনামুল হক আরমানকে গ্রেফতার প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, কাদের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে, কেন চলছে; প্রধানমন্ত্রী নিজেই তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন। এখানে লুকোচুরির কিছু নেই। যারা কালপ্রিট, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আওয়ামী লীগের সংকোচ নেই।

যুবলীগের কমিটিতে পরিবর্তন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেছেন, এ বিষয়ে শুধু আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলতে পারবেন। সভাপতি মৌখিক নির্দেশ দিয়েছেন। লিখিতভাবে যুবলীগ, কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগকে জানানো হয়েছে। নভেম্বর মাসের মধ্যেই অঙ্গ সংগঠনগুলোর সম্মেলন হবে। প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের চুক্তি আড়াল করতে সম্রাটকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে বিএনপি যে অভিযোগ করেছে, তাও নাকচ করে দেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, এগুলো হাস্যকর কথা। সম্রাট ভারতে পালানোর চেষ্টা করেছিল। তাকে খুঁজে পেতে দেরি হয়েছে।