22.2 C
New York
Thursday, September 16, 2021

Buy now

spot_img

গজনি দখল করে কাবুলের দিকে এগোচ্ছে তালেবান

অনলাইন ডেস্ক আফগানিস্তানের ৩৪টি প্রাদেশিক রাজধানীর মধ্যে প্রদেশের ১০টির নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর তালেবানের সঙ্গে ক্ষমতা ভাগাভাগির প্রস্তাব দিয়েছে প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি নেতৃত্বাধীন সরকার। বৃহস্পতিবার রাজধানী কাবুল থেকে মাত্র ১৫০ কিলোমিটার দূরের গজনি প্রদেশের রাজধানী গজনির নিয়ন্ত্রণ কট্টরপন্থিরা নেওয়ার পর সরকারের পক্ষ থেকে এই প্রস্তাব দেওয়া হয়। কাতারে কাবুল সরকার ও তালেবান নেতাদের মধ্যে চলমান শান্তি আলোচনা থেকে এমন প্রস্তাব এসেছে। তবে সরকার বা ওই সশস্ত্র গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এ বিষয়ে এখনও কিছু জানানো হয়নি। একদিকে দোহায় যখন শান্তি আলোচনা চলছে, অন্যদিকে দেশে পশ্চিমা-সমর্থিত সরকার হঠাতে একের পর এক প্রাদেশিক রাজধানী দখল করে নিচ্ছে তালেবান। মূলত বিদেশি সেনা প্রত্যাহার চূড়ান্ত করার মধ্য দিয়েই তালেবানের উত্থান ঘটে গেছে। তারা রাজধানী কাবুলের চারপাশের শহরগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। সর্বশেষ শুক্রবার গজনির দখল নেয় তালেবান। এখন ক্রমেই কাবুলের দিকে এগোচ্ছে কট্টরপন্থিরা। তবে আফগানিস্তান সংকটকে এখন অভ্যন্তরীণ ইস্যু হিসেবে দেখছে যুক্তরাষ্ট্র। এদিকে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, ২০ বছর ধরে এই সংকট সমাধানের চেষ্টা করা হয়েছে। তাতে ফল আসেনি। এখন শুধু জঞ্জাল সরাতেই ইসলামাবাদকে মনে পড়ছে ওয়াশিংটনের। খবর এএফপি ও আলজাজিরার।

আফগানিস্তান থেকে বিদেশি সেনা প্রত্যাহার প্রক্রিয়া শুরুর পর থেকে হামলা চালিয়ে একের পর এক জেলা, শহর, সীমান্ত ক্রসিং ও প্রাদেশিক রাজধানী দখল করে নিচ্ছে তালেবান। তাদের ঠেকাতে রীতিমতো নাস্তানাবুদ হচ্ছে আফগান বাহিনী। এরই মাঝে শুক্রবার কৌশলগতভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ গজনি দখলে নেয় তালেবান। শহরটি কাবুল-কান্দাহার মহাসড়ক-সংলগ্ন। রাজধানীর সঙ্গে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের যোগাযোগ এই সড়কপথ দিয়েই হয়ে থাকে। গজনির প্রাদেশিক কাউন্সিলের প্রধান নাসির আহমেদ ফকিরি বলেন, ‘শহরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তালেবান। তার মধ্যে গভর্নরের কার্যালয়, পুলিশ সদর দপ্তর ও কারাগার রয়েছে।’

তালেবানের পক্ষ থেকে আগেই দেশটির ৯০ শতাংশের বেশি দখলে নেওয়ার দাবি করা হয়েছে। তবে পশ্চিমা বিশ্লেষকরা বলছেন, আফগানিস্তানের মোট ভূখণ্ডের ৬৫ শতাংশে তালেবান তাদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেছে। যে কোনো সময় আরও ১১টি প্রাদেশিক রাজধানীর পতন ঘটতে পারে।

তালেবান একদিকে দেশের ক্ষমতা নিতে জোরালো লড়াই চালাচ্ছে, অন্যদিকে দোহায় সরকারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে শান্তি আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। উদ্ভূত পরিস্থিতির মধ্যে শুক্রবার সূত্র জানায়, আফগান সরকারের মধ্যস্থতাকারী কাতারের কাছে একটি প্রস্তাব জমা দিয়েছেন। যেখানে আফগানিস্তানে সহিংসতা বন্ধের বিনিময়ে তালেবানকে ক্ষমতার ভাগ দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ কান্দাহার, হেরাত ও লস্করগাহের নিয়ন্ত্রণ নিতে কয়েক দিন ধরে তুমুল লড়াই করছে তালেবান। মাজার-ই-শরিফ শহরেও হামলা জোরালো করেছে কট্টরপন্থিরা। এরই মধ্যে তালেবান বিদ্রোহীদের দ্রুত অগ্রগতির মুখে সেনাপ্রধান জেনারেল ওয়ালি মোহাম্মদ আহমদজাইকে অপসারণ করেছে সরকার।

শুক্রবার খবরে বলা হয়েছে, কান্দাহারের সারপোসা কারাগারে হামলা চালিয়ে প্রায় এক হাজার বন্দিকে মুক্তি দিয়েছে তালেবান। এটি দেশটির দ্বিতীয় বৃহৎ কারাগার। এ বিষয়ে এক কারা কর্মকর্তা জানান, বুধবার সন্ধ্যায় কারাগারটিতে প্রবেশ করে তালেবান যোদ্ধারা। পরে রাতে আক্রমণ শুরু করে তারা। বর্তমানে ওই এলাকা তাদের নিয়ন্ত্রণে।

তালেবানের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দীর্ঘ সময় অবরুদ্ধ থাকার পর কারা কর্তৃপক্ষ আত্মসমর্পণ এবং অস্ত্রভান্ডারের নিয়ন্ত্রণ হস্তান্তর করেছে।

এদিকে, ২০ বছর ধরে আফগান সরকারকে সাহায্য করছে যুক্তরাষ্ট্র। এখন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলছেন, আফগানদের দায়িত্ব এখন সরকারকে নিতে হবে। তালেবানের হাতে সরকারের পতনের আশঙ্কাকে এখন দেশটির অভ্যন্তরীণ সমস্যা হিসেবে দেখা হচ্ছে। প্রেসিডেন্টের কথাবার্তায় এমন আভাসই পাওয়া যাচ্ছে। তার কথায় এটা স্পষ্ট যে, কাবুল নিয়ে উৎসাহে ভাটা পড়েছে ওয়াশিংটনের। মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট বলেছেন, সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে কোনো অনুশোচনা নেই। যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের সাম্প্রতিক বক্তব্যে এটা পরিস্কার যে, তারা আফগানিস্তান সংকটকে আর আন্তর্জাতিক সমস্যা মনে করছেন না।

অন্যদিকে, আফগানিস্তানের চরম এই বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি প্রসঙ্গে ইমরান খান বলেছেন, এ ‘বিশৃঙ্খলা’ সামলাতেই তার দেশকে পাশে চাইছে যুক্তরাষ্ট্র। ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, কাবুলের বর্তমান পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তান কোনো পক্ষেই অবস্থান নেয়নি। তার ভাষ্য, এ মুহূর্তে দেশটিতে রাজনৈতিক সমাধান খুবই কঠিন।

যুক্তরাষ্ট্র প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ২০ বছর ধরে সংকট সমাধানের চেষ্টা করেও কোনো সুফল আসেনি। এখন শুধু জঞ্জাল পরিষ্কার করতেই ইসলামাবাদের কথা মনে পড়ছে ওয়াশিংটনের।

সম্পর্কিত

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সোস্যাল প্লাটফর্ম

27,000FansLike
15,000FollowersFollow
2,000SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ সংবাদ