রাণীনগরে আট ইউনিয়নে কৃষক নির্বাচনের উন্মুক্ত লটারী অনুষ্ঠিত

Spread the love

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগর উপজেলায় সরকারি ভাবে অভ্যন্তরীণ বোরো ধান সংগ্রহের জন্য উপজেলার আটটি ইউনিয়নের কৃষক নির্বাচনের উন্মুক্ত লটারী অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ লটারীর মাধ্যমে রাণীনগর উপজেলার আটটি ইউনিয়নের কৃষকদের ভাগ্য নির্ধারন করা হয়। লটারীতে নির্বাচিত কৃষকরা ধান দিতে পারবে সরকারি খাদ্য গুদামে।

জানা গেছে, রাণীনগর উপজেলায় ২৬ টাকা কেজি দরে সরাসরি কৃষকের নিকট থেকে ৩ হাজার ৩৪১ মেট্রিক টন ধান কিনবে সরকার। এ লক্ষে উপজেলার আটটি ইউনিয়নের কৃষক নির্বাচনের জন্য উন্মুক্ত লটারীর আয়োজন করা হয়। গত ১৪ মে রাণীনগর উপজেলা সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটির আয়োজনে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে কাশিমপুর ইউনিয়নের কৃষক নির্বাচনের লটারী করে এর উদ্বোধন করা হয়। বুধবার এ লটারী শেষ হয়। এতে ছয় দিনে রাণীনগর উপজেলার আটটি ইউনিয়নের কৃষক নির্বাচনের অন্মুক্ত লটারী শেষ করা হয়েছে। লটারী অনুষ্ঠানে খট্টেশ্বর সদর ইউনিয়নের ১১৬ জন, কাশিমপুর ইউনিয়নের ৯৫ জন, গোনা ইউনিয়নের ২৭২ জন, পারইল ইউনিয়নের ২৭৮ জন, বড়গাছা ইউনিয়নের ২৭৬ জন, কালীগ্রাম ইউনিয়নের ১৭৫ জন, একডালা ইউনিয়নের ২৮৪ জন ও মিরাট ইউনিয়নের ১৭২ জন কৃষক লটারীর মাধ্যমে নির্বাচিত হয়।

নির্বাচিত প্রতিজন কৃষক দুই মেট্রিক টন করে সরকারি খাদ্য গুদামে ধান দিতে পারবে। লটারী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাণীনগর উপজেলা সরকারি ধান-চাল ক্রয় কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আল মামুন। এতে উপস্থিত ছিলেন, রাণীনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল, উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম সরকার, উপজেলা খাদ্য গুদামের কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম লিটন, কৃষি কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য, কৃষক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

রাণীনগর উপজেলা খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম লিটন জানান, ২৬ টাকা কেজি দরে সরাসরি কৃষকের নিকট থেকে তিন হাজার ৩৪১ মেট্রিক টন বোরো ধান কিনবে সরকার। ধান সংগ্রহের জন্য রাণীনগর উপজেলার আটটি ইউনিয়নের কৃষক নির্বাচনের উন্মুক্ত লটারী করা হয়েছে। লটারীতে নির্বাচিত প্রতিজন কৃষক দুই মেট্রিক টন করে সরকারি খাদ্য গুদামে ধান দিতে পারবে। আগামী ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত এই ধান সংগ্রহ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।