ক্ষেতলালে গাছের সাথে শত্রুতা

Spread the love

আবু হাসান, ক্ষেতলাল (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি: জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে সেনা সদস্যের দুই বিঘা জমিতে লাগানো বাগানের প্রায় ৪০০টি ফলজ ও বনজ গাছ কেটে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার (১৯ মে) ভোর রাতে উপজেলার বড়াইল ইউনিয়নের হিন্দা বজরবরাহী গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

জানা গেছে, উপজেলার হিন্দা বজরবরাহী গ্রামের মোশারফ হোসেন ছেলে এসএম মুর্শিদুল আলম বিপ্লব কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্টে সৈনিক পদে কর্মরত আছেন, শখের বসে গ্রামের বাড়ীতে নানান প্রজাতির ফলদ ও বনজ বৃক্ষ বাগান গড়ে তুলেছিলেন তিনি। বেশিরভাগ গাছে এবার ফুল ফল এসেছিল। তিল তিল করে গড়ে তোলা তার বাগান রাতের আধারে শত্রুতা করে নিমিষেই কেটে দিল একদল দুর্বৃত্ত।

এসএম মুর্শিদুল আলম বিপ্লব জানান, সেনাবাহিনীতে চাকরির সুবাদে বেশিরভাগ সময়ে বাড়িতে থাকা হয় না, মাঝে মাঝে ছুটিতে এসেই এসব গাছের পরিচর্যা করি আমার আমার স্ত্রী, পিতামাতা ও বেতনভুক্ত কর্মচারী বাগান দেখাশোনা করে । আমার সাথে কারো কোন শত্রুতা নেই তবে হিংসাবশত কেউ এমনটি অমানবিক শত্রুতা করেছে আমার বাগানের গাছের সাথে। আমার সন্তানের মত তিলে তিলে গড়ে তোলা গাছ কেটে আমার ৫লক্ষাধিক টাকা ক্ষতি করেছে । মানসিকভাবে আমি অনেক কষ্ট পেয়েছি।

সেনা সদস্যের পিতা মোশারফ হোসেন জানান, এলাকার কারও সাথে তাদের কোনও ধরণের ঝামেলা নেই, তবে আমার দুই পুত্র সেনা বাহিনীতে চাকুরী করেন হিংসা করে আমার সন্তানের এই এমন ক্ষতি করেছে। গত বছর একই ভাবে আমাদের বাগানের ১০টি গাছ কেটে দিয়েছিল।

উপজেলা কৃষি অফিসার জাহিদুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন জানান, বিষয়টি আমি জেনেছি ঘটনার স্থল পরিদর্শন করেছি কে বা কাহারা রাতে আঁধারে বাগানের গাছ গুলো কেটে অপূরুনীয় ক্ষতি করেছে।

বড়াইল ইউপি চেয়ারম্যান আবু রাশেদ আলামগীর বলেন, রাতের আঁধারে গাছ কেটে ফেলার বিষয়টি শুনে আসামিদের চিহ্নিত করার জন্য ভুক্তভোগীদের আইনের আশ্রয় নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।