বরুড়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় লকডাউনে ২২ পরিবার, আরো আট জনের নমুনা সংগ্রহ

Spread the love

এমডি. আজিজুর রহমান, বরুড়া: বরুড়া উপজেলার খোশবাস (উ:) ইউনিয়নের পয়ালগুচ্ছ গ্রামে করোনা উপসর্গ নিয়ে জহির (২৮) বছরের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনায় মামার বাড়ীসহ ২২টি পরিবারকে লকডাউন করা হয়। একই পরিবারের ৬ জন ও দুই নিকট আত্নীয়সহ ৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

রবিবার (১৯ এপ্রিল) দুপুরে ভারপ্রাপ্ত আরএমও ডা. জামিল সিদ্দিকী, টেকনোলজিস ফরিদা বেগম, হারুনুর রশদি ও স্বাস্থ কর্মী মাকসুদা পয়ালগুচ্ছ এলাকা থেকে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করেন।

জানা গেছে, করোনা উপসর্গ নিয়ে জহিরকে দুইজন নিকট আত্নীয় সিএনজিযোগে বরুড়া রেনেসা হসপিটাল নিয়ে যান। ঐ যুবককে হসপিটালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সাইদ বিল্লাল চিকিৎসা প্রদান করেন। ঔষধ নিয়ে বাড়িতে গেলে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ও শাসকষ্ট বেড়ে গেলে ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করা হলে, তিনি রুগীকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন।

কুমিল্লা নেয়ার আগেই ঐ যুবকের মৃত্যু হয়। করোনার উপসর্গ নিয়ে নিহত যুবককে দেখতে সারা গ্রামের মানুষ দেখতে ভীর করে। এতে ধারনা করা হচ্ছে সারা গ্রামে করোনা ট্রান্সমেশন হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। পুরো গ্রামটি লকডাউন করার জন্য প্রস্তাবনা করা হলে বিষয়টি বিবেচনায় রেখেছেন ইউএনও বরুড়া।

এ পর্যন্ত ৩৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। একজনের পজেটিভ ও ২৪ জনের রির্পোট নেগেটিভ পাওয়া গেছে। এখনো ১০ জনের রির্পোট জানানো হয়নি। এ পর্যন্ত অন্তত ৩২ টি পরিবারকে লকডাউনে রাখা হয়েছে।

এবিষয়টি খোশবাস (উঃ) ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান সর্দার পেইজবুক লাইভে এসে বিস্তারিত প্রশাসনের সামনে আনেন।