পাকিস্তানকে ‘ক্রিকেটের ব্রাজিল’ দাবি আকরামের

Spread the love

অনলাইন ডেস্ক: একাল কিংবা সেকাল প্রতিভাবান ক্রিকেটারের সম্ভার পাকিস্তান। পূর্বে যেমন ইমরান খান, ওয়াসিম আকরাম, ওয়াকার ইউনূস, সাঈদ আনোয়ারের জন্ম হয়েছে পাকিস্তানে। তেমনি শোয়েব আখতার, শহিদ আফ্রিদি, ইউনূস খান, সালমান বাটদের সময় গেছে। এখন আবার বাবর আযম, ইমাম উল, মোহাম্মদ আমির, শাহিন শাহ আফ্রিদি, হাসনাইনদের সময় চলছে।

প্রতিভাবান এই ক্রিকেটাররা হুট-হাট দুর্দান্ত জ্বলে উঠে পাকিস্তানকে এনে দিয়েছে শিরোপা। ১৯৯২ সালে যেমন ইংল্যান্ডে সবাইকে অবাক করে দিয়ে বিশ্বকাপ জিতেছে পাকিস্তান। তেমনি ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জিতে ক্রিকেট বিশ্বকে অবাক করেছে। আবার ২০০৭ টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলে, ২০০৯ টি-২০ বিশ্বকাপে শ্রীলংকাকে হারিয়ে শিরোপা জিতে পাকিস্তান তাদের ক্রিকেট প্রতিভার প্রমাণ দিয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ক্রিকেটার ডিন জোন্স পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ওয়াসিম আকরামকে তাই বলেছেন, ‘পাকিস্তানকে ক্রিকেট প্রতিভার কারখানা বলাই ঠিক। আমরা অস্ট্রেলিয়ায় সব সময়ে বলে থাকি, পাকিস্তানে প্রতিভার অভাব নেই। তবে প্রতিভা সঠিক পথে পরিচালনা করাই আসল।’

জোন্সের এমন প্রশংসায় আকরাম দাবি করেন, ‘ক্রিকেটের ব্রাজিল বললেই হয়তো ঠিক বলা হবে পাকিস্তানকে।’ ব্রাজিল যেমন নিজেদের ফুটবল লিগে বর্তমানে খুব একটা নাম করতে না পারলেও ইউরোপের শীর্ষ লিগে প্রতিভাবান ফুটবলার সরবরাহ করার জুড়ি নেই। ইউরোপের বড় বড় ক্লাবের এজেন্টরা ব্রাজিলের প্রতিভা খুঁজতে অঞ্চলিক ক্লাব থেকে শুরু করে এ গলি সে গলি ঘুরে বেড়ান।

ব্রাজিলের পেলে, গারিঞ্চা, টোস্টাও, সক্রেটিস কিংবা জিকোরা যেমন সেকালের প্রতিভা ছিলেন তেমনি এ কালের ব্রাজিলিয়ান প্রতিভারা হলেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র, রদ্রিগো, রেইনিয়ের, জেসুস, মার্টিনেলরা। নেইমার, কুতিনহো, আলভেজ, মার্সেলোদের তার আগের প্রজন্ম বলা চলে। এর আগে রোনালদো, রোমারিও, রোনালদিনহো, রিভালদোরা বিশ্ব মাতিয়েছেন। ওয়াসিম আকরামের চোখে, পাকিস্তানের ক্রিকেটেও ব্রাজিলের মতো প্রতিভার ছড়াছড়ি।

জোন্স বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা একটা নির্দিষ্ট বয়সে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে আসে। সেখানে পাকিস্তান ক্রিকেটাররা খুব অল্প বয়সে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দেয়। ভরা মেলবোর্নে ইংল্যান্ডকে যেদিন তোমরা হারালে সেদিন খুব খুশি হয়েছিলাম।’ ওই বিশ্বকাপে আকরাম, ইনজামাম উল হকরা ছিলেন কমবয়সী। তবে এতটাই প্রতিভাবান ছিলেন যে অভিজ্ঞ ইংল্যান্ড ধরাশয়ী হয়।