সামগ্রী নিয়ে কোন প্রকার অনিয়ম-দূর্নীতি করলে কঠোর ব্যবস্থা- এমপি এনামুল

Spread the love

মোঃ মঞ্জুর রহমান মুন্না, বাগমারা (রাজশাহী) প্রতিনিধি: অসহায়দের ত্রাণ করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব রোধে সরকার বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। সকল বেসরকারি-সরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা দিয়েছেন। ঘর থেকে বাহির হতে নিষেধ করেছেন।অতিপ্রয়োজনীয় না হলে বাহির হতে না করেছেন।

সবল্প আয়ের মানুষ ঘরবন্দি থাকায় তারা অসহায় হয়ে পড়েছে। করোনা সংকট মোকাবেলায় সরকার আসহায়দের জন্য চালু করেছে বিশেষ ত্রাণ সহায়তা।রাজশাহী, বাগমারা আসনের তিন বারের সফল সংসদ সদস্য ইঞ্জিঃ এনামুল হক বলেন, করোনা সংকট মোকাবেলায় অসহায়দের ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে কোন প্রকার অনিয়ম-দূর্নীতি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘ত্রাণ নিয়ে কোন প্রকার দূর্নীতি ছাড় দেওয়া হবে না।’ ‘দুঃসময়ে কেউ সুযোগ নিলে আমি কিন্তু তাকে ছাড়বো না।’করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবে সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী সকলে ঘরবন্দী হয়ে পড়েছে। স্বল্প আয়ের মানুষ অসহায় হয়ে পড়েছে। অসহায় মানুষদের কথা চিন্তা করে দেশব্যাপী অসহায়দের জন্য বিশেষ ত্রাণ সহায়তা চালু করেছে মাননীয় প্রধানমন্রী শেখ হাসিনা।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন,  আপনারা যারা প্রতিনিধি যেভাবে ভোট চাইতে বাড়ি বাড়ি গিয়েছিলেন ঠিক তেমনি এই সংকটময় সময়ে তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য পৌছে দিন।করোনা সংকট মোকাবেলায় বাগমারা উপজেলার ২ টি পৌরসভা এবং ১৬ টি ইউনিয়নের প্রকৃত অসহায়, দরিদ্র, দুস্থদের তালিকা করার কথা বলা হয়েছিল।

ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করতে যেন কোন প্রকার দূর্নীতি-অনিয়ম না হয় সে জন্য পৌসরসভা মেয়র ও ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও আ’লীগের সকল নেতৃবৃন্দের বিশেষ সর্কতার কথা বলেছিলেন সংসদ সদস্য ইঞ্জিঃ এনামুল হক।ই সংকটময় সময়ে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে কোন প্রকার অনিয়ম-দূর্নীতি মেনে নেওয়া হবে না, তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

করোনা সংকটময় সময়ে কাউকে যেন খাদ্যের অভাবে না খেয়ে থাকতে হয়। সে জন্য সরকার বিশেষ খাদ্য সহায়তা কার্যক্রম চালু করেছেন। সকলের আন্তরিক সহযোগিতায় সরকারের এই কার্যক্রম সফলভাবে বাস্তবায়ন হয় সে জন্য পৌরসভা মেয়র ও ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও আ’লীগ নেতৃবৃন্দদের আহ্বান জানান  সংসদ সদস্য ইঞ্জিঃ এনামুল হক।

তিনি বলেন, করোনা সংকট মোকাবেলায় যা যা করা প্রয়োজন সরকার তা করছেন। কারো একার পক্ষে এই সংকট মোকাবেলা করা সম্ভব নয়। বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে। ব্যক্তিগতভাবে আমি সহযোগিতা করছি। প্রয়োজন হলে আরো করব।মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে নিজে, পরিবার ও রাষ্ট্রকে বাঁচাতে সরকারি সকল নির্দেশনা মানার আহ্বান জানান।