ঋতুরাজের বন্দনায় মুখরিত ইবি

Spread the love

আজাহার ইসলাম, ইবি প্রতিনিধি: ঋতুরাজের বসন্ত বন্দনায় কবি সুফিয়া কামালের লেখা তাহারেই পড়ে মনে কবিতার দু’চরণ মনে পড়ে গেল,
“হে কবি! নীরব কেন-ফাল্গুন যে এসেছে ধরায়,
বসন্তে বরিয়া তুমি লবে না কি তব বন্দনায়?”
কহিল সে স্নিগ্ধ আঁখি তুলি-
“দখিন দুয়ার গেছে খুলি?
বাতাবী নেবুর ফুল ফুটেছে কি? ফুটেছে কি আমের মুকুল?
দখিনা সমীর তার গন্ধে গন্ধে হয়েছে কি অধীর আকুল?”

হ্যাঁ, প্রকৃতিতে আগমন ঘটেছে বসন্তের। ফিরে পেয়েছে নতুন যৌবন। শাখে শাখে ফুল। আমের মুকুল। গাছে গাছে পাখির কলরব জানান দিচ্ছে বসন্তের আগমন ঘটেছে।

বসন্ত মানেই তো রং, রঙের খেলা। তাই তো সর্বোচ্চ রংটুকু দিয়ে নিজেদের সাজিয়ে উৎসবে মেতেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। মেয়েরা সেজেছে বাসন্তী শাড়ির সঙ্গে হলুদ গাঁদা ফুল আর ছেলেরা সেজেছে বসন্তের আবির রাঙা পোশাকে।

বসন্তবরণ উপলক্ষে ইবির বাংলা বিভাগের আয়োজনে বসন্ত উৎসব ১৪২৬ ও আনন্দ শোভাযাত্রা উদযাপিত হয়েছে।

শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্র-নজরুল কলা ভবনের সামনে থেকে শোভাযাত্রা শুরু হয়। শোভাযাত্রাটি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বাংলা মঞ্চে এসএ মিলিত হয়।

পরে ক্যাম্পাসের বাংলা মঞ্চে আয়োজন করা হয় বসন্ত বরণ উপলক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠান, সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশনা এবং বসন্তের কবিতা পাঠ।

বাংলা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. সাইদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা। এছাড়া বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. রবিউল ইসলামসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. বাকি বিল্লাহ বিকুল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, ‘আমাদের সংস্কৃতির এক সুন্দর ঋতু বসন্ত। বাঙালির ছয় ঋতুর রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন ঐহিত্য। কিন্তু বসন্তের আমেজ সবাইকে এনে দেয় অসামান্য পরিবর্তন। নানা ফুলের সমারোহ পরিবেশকে করে তোলে উপভোগ্য। ফুল আর প্রকৃতির নতুন সাজে তৈরি করে পরিবেশ । সবার জীবনে একইভাবে পরিবর্তনের ছোঁয়া লাগে।’