বাবুগঞ্জে কৃষি প্রশিক্ষণ অধ্যক্ষের অপসারনের দাবীতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

Spread the love

রাহাদ সুমন, বানারীপাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি: বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার রহমতপুর কৃষি প্রশিক্ষণ ইনষ্টিটিউটের অধ্যক্ষ কৃষিবিদ গোলাম মোঃ ইদ্রিসের স্বেচ্ছাচারিতা, ক্ষমতার অপব্যবহার, পরীক্ষার ফি অতিরিক্ত নেয়ায় অধ্যক্ষের অপসারন দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

সোমবার সকাল ১০টায় ছাত্র ঐক্যপরিষদ জোটের ব্যানারে কলেজের প্রশাসনিক ভবনের মূল ফটকে শিক্ষার্থীরা তালা ঝুলিয়ে অধ্যক্ষকে অবরুদ্ধ করে রেখে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ বাস্থবায়নের দাবীতে ক্যাস্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেন। মিছিলটি গুরুত্বপূর্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করেন।

এসময় সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন অষ্টম সেমিষ্টারের শিক্ষার্থী মোঃ সাগর সরদার, আহম্মেদ হাসালাইন, রিয়াজুল ইসলাম, জান্নাতুন আখি, মেহেদি, ইসা, রাকিবুল হাসান প্রমূখ। বক্তারা অভিযোগ করেন অধ্যক্ষকের ক্ষমতার অপব্যবহারের কারণে এ প্রতিষ্ঠান থেকে ৫ জন শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্থানান্তর করেছেন। অধ্যক্ষ সকল শিক্ষার্থীর বাকশক্তি রুদ্ব করে রেখেছে।

এ ছাড়াও কলেজে মুজিব বর্ষ পালন না করায় শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্ঠি হয়েছে। তাই তারা অবিলম্ভে অধ্যক্ষের অপসারনের দাবী জানান।কলেজের অধ্যক্ষের প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুঁলিয়ে অবরুদ্ধ রাখার সংবাদ পেয়ে উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল আহম্মেদ আজাদ, সহকারি কমিশনার (ভূমি) নুসরাত জাহান খান, জেলার কৃষি অধিদফতরের উপ-পরিচালক হরিদাস শিকারী, এয়ারপোর্ট থানার ওসি এস এম জাহিদ বিন আলম ,কৃষি অফিসার মরিয়াম বেগম, আওয়ামী লীগের যুগ্ন-সস্পাদক দেলোয়ার হোসেন কলেজ ক্যাস্পাসে ছুঁটে যান।

শিক্ষার্থীদের দাবি পূরনের জন্য আগামী বৃহস্পতিবার উপজেলা চেয়ারম্যান ,ভাইস চেয়ারম্যান ও কলেজের শিক্ষক সমন্বয় শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানের আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা তাদের কর্মসূচী স্থগিত করেন। এ প্রসঙ্গে অধ্যক্ষ গোলাম মোঃ ইদ্রিস বলেন, তিনি ২০১৮ সালের ৫ আগষ্ট ইনষ্টিটিউটে যোগদানের পর থেকে ইনষ্টিটিউটে বহিরাগতদের প্রবেশ বন্ধ এবং মাদক মুক্ত করা হয়েছে।

তিনি ক্ষোভের সঙ্গে আরো বলেন পূর্বে এ কলেজে শিক্ষার্থীদেরকে হাতে কলমে শিক্ষার জন্য মাঠে যেতে হতো না। এমনকি ল্যাবরেটরী গিয়ে হাতে কলমে কিছু শিক্ষা দেয়া হয়নি। যার কারণে ল্যাবরেটরীতে বিভিন্ন যন্ত্রপাতি নষ্ট হয়ে পরে আছে। আমি এসব বিষয় আমূল পরির্বতন করার জন্য শিক্ষার্থীদের সকল বিষয় প্রশিক্ষণের নির্দেশ দেয়ায় শিক্ষার্থীরা আমার অপসরনের দাবী করছেন যাহা আদৌ সত্য নয়,এটা একটি ষড়যন্ত্র।