বরুড়ায় যুবককে কুপিয়ে হত্যা

Spread the love

বরুড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি: কুমিল্লা বরুড়ার আড্ডা পল্লী বিদ্যুত অভিযোগ কেন্দ্রের ইনচার্জ শরিফ উদ্দীন খান (৪৫) কে ঘরে প্রবেশ করে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে আড্ডা গ্রামের একটি ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ আশঙ্কাজনক অবস্থায় শরিফকে কুমেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন। নিহত শরিফ সিরাজগঞ্জ জেলা সদরের সাইফুল ইসলাম খানের ছেলে।

স্থানীয় ও থানা সূত্রে জানা গেছে, শরিফ ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে বরুড়া পল্লী বিদ্যুতে যোগদান করেন। উপজেলার আড্ডা ইউনিয়নের আড্ডা পল্লী বিদ্যুত অভিযোগ কেন্দ্রে তিনি ৩ মেয়ে ও স্ত্রী ওম্মে মোনালিছা (হিমু) সহপরিবারে বসবাস করতেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে মুখ বাধা ৪ জন পুরুষ রান্নাঘরের জানালা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে ঘুমন্ত শরিফের মাথায় রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। পাশের রুমে স্ত্রী হিমু তিন মেয়েকে নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন। দুর্বৃত্তরা স্ত্রী হিমুর হাত বেধে গলার চেইন ও কানের দুল সহ তার স্বামীর পরনের প্যান্ট থেকে টাকা নিয়ে পেছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যায়।

রে স্ত্রী হিমুর চিৎকার শুনে প্রতিবেশী ইদ্রিস মিয়া তার হাতের বাধন খুলে দেন। খবর পেয়ে পুলিশ আহত শরিফকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠালে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ পরিদর্শক (পিবিআই) ইফতেখার আলম, বরুড়া থানার ওসি (তদন্ত) ইকবাল বাহার ও পল্লী বিদ্যু তের প্রকৌশলী (এজিএম) মোস্তাফিজুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এ বিষয়ে বরুড়া থানা ওসি (তদন্ত) ইকবাল বাহার বলেন, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ধারনা করা হচ্ছে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড। দুর্বৃত্তরা ঘরে প্রবেশ করেই শরিফের মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। পাশের রুমে থাকা তার স্ত্রী হিমু তাদের উদ্দেশ্যে বলে আমার স্বামী ও সন্তানদের কোন ক্ষতি করবেন না, সে সেচ্ছায় তার ব্যবহৃত স্বর্ণলংকার দিয়ে দেয়। তখনো সে ভেবেছিলো তার স্বামী শরিফকে তারা কিছু করেনি। পরোক্ষনে সে বুঝতে পারে তার স্বামী রক্তাক্ত অবস্থায় মেজেতে পড়ে রয়েছে। আমরা নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছি।

এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি।