তারকাখ্যাতির প্রতি মোহ নেই: ভাবনা

Spread the love

অনলাইন ডেস্ক: আশনা হাবিব ভাবনা। অভিনেত্রী ও নৃত্যশিল্পী। নাগরিক টিভিতে প্রচার হচ্ছে তার অভিনীত ধারাবাহিক নাটক ‘গোল্লাছুট’। মীর সামী রচিত ও মাতিয়া বানু শুকু পরিচালিত এ নাটকের পাশাপাশি তিনি ব্যস্ত আছেন ‘বোকা ভূত’ নামের আরও একটি ধারাবাহিকের কাজ নিয়ে। বর্তমান ব্যস্ততা ও অন্যান্য প্রসঙ্গ নিয়ে কথা হয় তার সঙ্গে-

ধারাবাহিক নাটকে আপনাকে খুব একটা দেখা যায় না। হঠাৎ ‘গোল্লাছুট’ নাটকে অভিনয় করলেন কী কারণে?

এই নাটকের গল্প ভীষণ ভালো লেগেছে। ভালো লাগার আরেকটি বিষয় হলো, এই নাটকের পরিচালক মাতিয়া বানু শুকু। যাকে খুব কাছে দেখার এবং কাজ নিয়ে তার চিন্তাভাবনা কেমন তা জানার সুযোগ হয়েছে। অল্প বাজেটের নাটকও নান্দনিক হতে পারে- তা বহুবার দেখানোর চেষ্টা করেছেন তিনি। ভীষণ পরিশ্রম করতে পারেন। যখন কাজ করেন, তখন কাজের মধ্যেই পুরোপুরি ডুবে যান। এমন একজন নির্মাতা যখন কোনো কাজের প্রস্তাব দেন, তখন তা ফিরিয়ে দেওয়ার সুযোগ থাকে না। নিজেও চাই না তার মতো নির্মাতাদের সঙ্গে কাজের সুযোগ হারাতে। আর ধারাবাহিক নাটকে কাজ কেন করতে চাই না, জানতে চাইলে সোজাসাপ্টা বলব, এ সময়ের বেশিরভাগ ধারাবাহিক নাটকে গল্পের ধারাবাহিকতা নেই। কখন কোন চরিত্র পর্দায় আসবে তারও কোনো ঠিক-ঠিকানা নেই। এ জন্যই ধারাবাহিক নাটকে কাজ করা হয়ে ওঠে না।

‘গোল্লাছুট’ নির্মাণের পর কী মনে হয়েছে, যে ধরনের ধারাবাহিক নাটকে কাজ করতে চান এই নাটকটি তেমনই? 

এ নাটকের প্রতি পর্বে দর্শক নতুন সব গল্প পাবেন। ধারাবাহিক হলেও এতে একক নাটকের ছোঁয়া আছে। আমি ‘গোল্লাছুট’ নাটকের যে পর্বে অভিনয় করেছি, সেটি ভীষণ ভালো লেগেছে। অল্প বাজেটেও পরিকল্পিতভাবে কাজটি করা হয়েছে বলেই এতে যত্নের ছাপ খুঁজে পাওয়া যাবে।

অভিনয়ে নিজেকে ভাঙার জন্যই কী গ্ল্যামার চরিত্রের বাইরে গিয়ে ‘ঘুমন্ত শহর’ নাটকে অভিনয় করা?

আমি তো সবসময় অভিনেত্রী হতে চাই। তারকাখ্যাতির প্রতি আমার কোনো মোহ নেই। অন্যদের মতো পর্দায় প্রতিদিন নিজেকে দেখতে চাই না। এ জন্য সেই কাজগুলো করতে চাই, যেখানে নিজেকে আগের চরিত্র থেকে আলাদা করে তুলে ধরা যাবে। ‘ঘুমন্ত শহরে’ নাটকের রানী চরিত্রটি আমার অভিনয় ক্যারিয়ারের অন্য সব চরিত্র থেকে একেবারে আলাদা। একজন নার্সের মেয়ে যে তার বাবাকে খুঁজে বেড়াচ্ছে, প্রতিনিয়ত সংগ্রামের মধ্য দিয়ে জীবন পাড়ি দিচ্ছে- এমন চরিত্রে কাজ করার সুযোগ আগে আসেনি। আমার বিশ্বাস, দর্শকও সে কথা স্বীকার করবেন।

শুনলাম নতুন ধারাবাহিক নাটকের জন্য নিয়মিত মহড়ায় অংশ নিচ্ছেন?

ঠিকই শুনেছেন। ‘বোকা ভূত’ নামের নতুন একটি ধারাবাহিক নাটকের জন্য নিয়মিত মহড়ায় অংশ নিচ্ছি। আগের প্রজন্মের নামি যত নাট্যশিল্পী আছেন, তারা নাটকের মহড়ায় অংশ নিতেন। যাতে করে গল্প ও চরিত্রের সঙ্গে মিশে যাওয়া সহজ হতো। এখন তো কেউ এভাবে নাটক নির্মাণই করেন না। হয়তো এ কারণেই নাটকের মান দিন দিন নেমে গেছে। ভালো কিছু করতে হলে শিল্পীদের তা ভালোভাবে আয়ত্ত করে নেওয়ার সুযোগ দেওয়া উচিত। ‘বোকা ভূত’ সে ভাবনা থেকেই নির্মাণ করা হচ্ছে। আমার ধারণা, এই নাটকটিও আমার অভিনয় জীবনের ভিন্ন ধরনের একটি কাজ হবে।

নাচের আয়োজন নিয়ে কিছু ভাবছেন?

আমি একা ভাবলে তো কিছু হবে না। আরও অনেকের নাচ নিয়ে ভাবতে হবে। টিভি চ্যানেলগুলো তো নাচ নিয়ে তেমন কিছুই করে না। নিয়মিত কোনো অনুষ্ঠানও নেই তাদের। এটা দেখে প্রায়ই মন খারাপ হয়ে যায়। তিন বছর বয়সে নাচ শেখা শুরু করেছিলাম। এখনও অনেক কিছু শেখার চেষ্টা করে যাচ্ছি। সে জন্যই নাচের প্রতি এক ধরনের দুর্বলতা আছে। টিভি অনুষ্ঠান করার সুযোগ কম। তাই দেশ-বিদেশের মঞ্চে বিভিন্ন আয়োজনে নাচ পরিবেশন করি। গত ডিসেম্বরের বেশকিছু অনুষ্ঠান করেছি। বিদেশ সফরে গিয়েই নাচ নিয়ে অনেকের প্রশংসা পেয়েছি।

লেখালেখি কেমন চলছে?

লেখালেখি তো আমার পেশা না। তাই রুটিন ধরে কিছু লিখি না। গল্প বা উপন্যাস যেটাই হোক যখন ভালো লাগে, তখনই শুধু লেখার চেষ্টা করি।