চীনের প্রধান তেল সংস্থাকে কালো তালিকাভুক্ত করল যুক্তরাষ্ট্র

Spread the love

অনলাইন ডেস্ক: ‘উন্মুক্ত’ দক্ষিণ চীন সাগর ‘সংরক্ষণের’ পদক্ষেপ হিসেবে চীনের প্রধান তেল সংস্থা চায়না ন্যাশনাল অফশোর অয়েল কর্পোরেশনকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের মেয়াদ শেষের মাত্র কয়েকদিন আগে সংস্থাটির বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেওয়া হলো। খবর কিয়োডো নিউজের।

বেইজিং দক্ষিণ চীন সাগরে আনুমানিক ২.৫ ট্রিলিয়ন ডলারের তেল ও গ্যাস সম্পদের দাবিদার অন্য দেশগুলোকে তোয়াক্কা না করে নিজেদের দাবি করায় ও প্রচারণা চালানোয় এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

বৃহস্পতিবার পম্পেও এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র দক্ষিণ চীন সাগরে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয় দাবিদার রাষ্ট্রগুলোর সার্বভৌম অধিকার এবং স্বার্থ রক্ষার জন্য তাদের পাশে আছে।’

চীনা রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের পাশাপাশি দেশটির কমিউনিস্ট পার্টি এবং এর সামরিক বাহিনীর কর্মকর্তাদের যারা বিতর্কিত দ্বীপগুলো সামরিকীকরণের জন্য দায়ী তাদের ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞাও দেওয়া হচ্ছে।

দক্ষিণ চীন সাগরে ব্রুনাই, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম এবং তাইওয়ানের দাবি নাকচ করে পুরোটা নিজেদের দাবি করছে বেইজিং। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের জুলাইয়ে ট্রাম্প প্রশাসন দক্ষিণ চীন সাগরের বিষয়ে নীতিগতভাবে কঠোর অবস্থান নেয় এবং সেখানকার সমুদ্রসম্পদ বিষয় বেইজিংয়ের দাবিকে ‘সম্পূর্ণ বেআইনি’ বলে অভিহিত করে।