ধর্ষকদের যৌনাঙ্গ কেটে দেবে নাইজেরিয়া

Spread the love

অনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাসের মহামারিতে লকডাউন চলাকালে আফিক্রার দেশ নাইজেরিয়ায় ধর্ষণের সংখ্যা বেড়ে গেছে। চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত দেশটিতে ৮০০ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাই ধর্ষণের মতো এই ন্যক্কারজনক ঘটনা বন্ধে আইন আরো কঠিন করতে চাইছে দেশটির সরকার। 

প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে, ধর্ষকদের অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে যৌনাঙ্গ কেটে বাদ দেয়া হবে। আর  শিশু ধর্ষণ করলে তার সাজা হবে মৃত্যুদণ্ড। খবর মিররের।

নাইজেরিয়ার কাদুনা প্রদেশে ধর্ষণের সংখ্যা অত্যাধিক বেড়ে যাওয়ার কারণে মানুষের মধ্যে প্রবল ক্ষোভের সঞ্চার হয়। ধর্ষকদের কঠোর শাস্তির দাবি উঠে এসেছে জনগণের কাছ থেকে।  সেই দাবিকে মেনে নিয়েই কঠোর সাজার পথে হাঁটতে চলেছে নাইজেরিয়ার প্রশাসন। বলা হয়েছে যে পুরুষ ধর্ষকদের ক্ষেত্রে অস্ত্রোপচার করে যৌনাঙ্গ বাদ দিয়ে দেওয়া হবে। আর যদি কোনও মহিলা ধরা পড়েন, তাহলে তাঁর ফেলোপাইন টিউব বাদ দিয়ে দেওয়া হবে। এছাড়া ১৪ বছরের কম বয়সের শিশুকে ধর্ষণ করলে মৃত্যুদণ্ডের মুখে পড়তে হবে। 

কাদুনার গর্ভনর আগেই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, ধর্ষণ রুখতে আরও কঠোর পদক্ষেপ করা দরকার। সে দাবি মেনে নিয়ে এবার কঠোর পথে হাঁটতে চলেছে নাইজেরিয়ার সরকার।