আইন মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে রায় দেয় বিচার বিভাগ: ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক: বর্তমানে বিচার বিভাগের কোনো স্বাধীনতা নেই দাবি করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘এই বিচার বিভাগ এমন একটা পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছে, যেখানে সরকারের আইন মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বিচারের হুকুম বা রায় দিতে হয়।’

মঙ্গলবার রাজধানীর ইস্কাটন গার্ডেনের লেডিস ক্লাবে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ড্যাব) কেন্দ্রীয় সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। ১৯৯৪ সালে পাবনায় তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা মামলার প্রসঙ্গ টেনে সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল আরও বলেন, ওই ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি। ২৫ বছর পর সেই মামলার রায়ে নয়জনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। ২৫ জনের যাবজ্জীবন এবং ১৩ জনকে ১০ বছর করে কারাদণ্ডও দেওয়া হয়েছে। এই হচ্ছে বিচার বিভাগের অবস্থা।

সরকার উন্নয়নের ঢোল বাজাচ্ছে বলে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি করা হয়েছে এলএনজি আমদানির ভর্তুকি দেওয়ার জন্য। এলএনজি আমদানির সঙ্গে সম্পৃক্তরা সরকারের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত বলে অভিযোগ করে ফখরুল বলেন, যে উন্নয়নের কথা বলে জনগণের পকেট থেকে টাকা বের করে নেওয়া হচ্ছে, সেই অর্থ ব্যয় করা হচ্ছে শুধু ক্ষমতাসীন দলের গুটিকতক মানুষের সুবিধার জন্য।

সরকার দেশকে পরনির্ভরশীল দেশে পরিণত করতে যাচ্ছে দাবি করে ফখরুল বলেন, শিক্ষিত যুবকরা চাকরি পান না। কর্মসংস্থান নেই। বেকারত্ব বাড়ছে। অথচ একই সময়ে ভারত থেকে কর্মীরা এসে প্রায় ১০ বিলিয়ন ডলার নিয়ে যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য জনগণের ঐক্য খুব প্রয়োজন বলে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, দলমত নির্বিশেষ সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

ড্যাবের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ফরহাদ হালিম ডোনারের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব ওবায়দুল কবির খানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন, অধ্যাপক রফিকুল কবির লাবু, অধ্যাপক মোস্তাক রহিম স্বপন, একেএম মহিউদ্দিন ভুঁইয়া মাসুম প্রমুখ।

এর আগে সকালে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং বেলুন উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধন করেন মির্জা ফখরুল। দুপুরে ড্যাবের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর সংগঠনের নবনির্বাচিত সভাপতি হারুন আল রশিদ, মহাসচিব আব্দুস সালাম, সিনিয়র সহসভাপতি আবদুস সেলিম, কোষাধ্যক্ষ জহিরুল ইসলাম শাকিল ও সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মেহেদী হাসানের নাম ঘোষণা করা হয়। গত ২৫ মে কাউন্সিলরদের ভোটে এই নেতৃত্ব নির্বাচন করা হয়। এই কাউন্সিলের মাধ্যমে ড্যাবের আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়।

মতামত