বরিশালে রহস্যজনক মৃত্যু নববধূর

অনলইন ডেস্ক: বরিশাল নগরীতে স্বামীর বাড়িতে নববধূ সুস্মিতা সরকারের (১৮) রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনায় স্বামী মাইনুল ইসলাম শান্ত ও শাশুড়ি শাহনাজ মাহমুদকে আসামি করে হত্যা মামলা করা হয়েছে। পুলিশ শান্তকে গ্রেফতার করেছে।

স্থানীয় ও শান্তর স্বজনরা জানান, শনিবার রাতে নগরীর গোরস্তান রোড ধোপাবাড়ির মোড় সড়কে স্বামীর বাসায় সুস্মিতা গলায় ফাঁস দেন। পরে তাকে শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাসপাতালে নিয়ে যান শান্ত। সেখানকার চিকিৎসক সুম্মিতাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার পুলিশ শান্তকে গ্রেফতার করে।

খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বী সুস্মিতা নগরীর নবগ্রাম সড়কের স্বপন সরকারের মেয়ে। তিনি সরকারি সৈয়দ হাতেম আলী কলেজে উচ্চ মাধ্যমিকের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল মুসলিম পরিবারের ছেলে নগরীর ধোপাবাড়ি মোড় এলাকার বাসিন্দা শান্তর।

দুই পরিবারের অমতে প্রায় মাস খানেক আগে তারা বিয়েবন্ধনে আবদ্ধ হন। দুই পরিবার এ বিয়ে মেনে নেয়নি। এ নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে কলহ চলছিল। শনিবার রাতে পারিবারিক কলহের জেরে সুস্মিতা গলায় ফাঁস দেন। শান্ত তখন বাসায় ছিলেন না। তিনি বাসায় ফিরে সুস্মিতাকে উদ্ধার করে শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে যান।

মডেল থানার উপ-পরিদর্শক সাইদুল হক বলেন, সুস্মিতাকে তার স্বামী হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিলেন। তার আগেই সুস্মিতার মৃত্যু হয়। সুস্মিতার পরিবার হত্যার অভিযোগ করায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শান্তকে হাসপাতাল থেকে আটক করা হয়।

তিনি বলেন, রোববার সকালে সুস্মিতার বাবা স্বপন সরকার বাদী হয়ে শান্ত ও তার মাকে আসামি করে হত্যা মামলা করেছেন। ওই মামলায় শান্তকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

মতামত