৪ মাস পর কলম্বোর সীমান্ত খুলে দিলো ভেনেজুয়েলা

কলম্বিয়ায় প্রবেশের জন্য ভেনেজুয়েলানদের দীর্ঘ লাইন-বিবিসি

অনলাইন ডেস্ক: নাগরিকদের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য কেনার সুযোগ করে দিতে চার মাস বন্ধ থাকার পর কলম্বিয়া সীমান্ত পুনরায় খুলে দিয়েছে ভেনেজুয়েলা। শনিবার সীমান্ত খুলে দেওয়ার পর হাজার হাজার মানুষ কলম্বিয়ায় প্রবেশ করেছে।খবর বিবিসির।

মার্কিন আগ্রাসনের শঙ্কায় গত ফেব্রুয়ারিতে কলম্বিয়া, ব্রাজিল ও ডাচ দ্বীপ আনতিলিস সীমান্তবর্তী অঞ্চলের দ্বার বন্ধ করে ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো।

গত মাসে ব্রাজিল ও আরুবা সীমান্ত খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন মাদুরো। এবার খুলে দিলেন কলম্বিয়া সীমান্ত। 

এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ‘আমি রোববার কলম্বিয়া সীমান্ত খুলে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি। আমরা শান্তিপ্রিয় মানুষ। শক্তভাবে আমাদের স্বাধীনতা ও আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার রক্ষা করবো।

 নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের প্রবল সংকটের কারণে ২০১৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ৪০ লাখ বাসিন্দা দেশটি থেকে পালাতে বাধ্য হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

কলম্বিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মতে, ৩০ হাজারেরও বেশি ভেনেজুয়েলান শনিবার কলম্বো পৌঁছেছেন। 

খাদ্য, ওষুধসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের প্রবল সংকট চলছে ভেনেজুয়েলায়। বাধ্য হয়ে তারা আশ্রয় নিচ্ছেন প্রতিবেশী দেশ কলম্বিয়া ও ব্রাজিলে। 

এই অর্থনৈতিক সংকটের বিরুদ্ধে এ বছরের শুরুতে ভেনেজুয়েলায় বিক্ষোভ শুরু হয়। বিক্ষোভের সুযোগে গত ২৩ জানুয়ারি দেশটির বিরোধীদলীয় নেতা জুয়ান গুইদো নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন। যুক্তরাষ্ট্রসহ ৫০টি দেশ তাকে স্বীকৃতি দিয়েছে। 

গুইদোর পশ্চিমা মিত্ররা মনে করে, গুইদোর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ত্রাণ ভেনেজুয়েলায় বিতরণ করা সম্ভব হলে তা মাদুরোর ভাবমূর্তিকে দেশবাসীর কাছে ম্লান করবে। 

এদিকে মাদুরোর দাবি, ত্রাণ দেওয়ার মাধ্যমে ভেনেজুয়েলায় সামরিক আগ্রাসন চালানোর চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র।

মতামত