কোন স্টেশনে মিলবে কোন জেলার টিকিট

আগামী ২২ মে বুধবার থেকে ট্রেনের ঈদযাত্রার আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। আগের বছরগুলোতে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি করা হতো শুধু কমলাপুর স্টেশন থেকে। এবার কমলাপুর ছাড়াও টিকিটি বিক্রি করা হবে তেজগাঁও, বনানী ও বিমানবন্দর স্টেশন এবং ফুলবাড়িয়ার নগর কাউন্টার থেকে।

বুধবার রেলভবনে সংবাদ সম্মেলনে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন জানিয়েছেন, কমলাপুর থেকে পশ্চিমাঞ্চলের অর্থাৎ রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগের জেলাগুলোর ট্রেনের টিকিট বিক্রি করা হবে।

তিনি জানান, বিমানবন্দর স্টেশন থেকে বিক্রি করা হবে চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী ট্রেনের টিকিট। তেজগাঁও থেকে বিক্রি করা হবে ময়মনসিংহ ও জামালপুর ট্রেনের টিকিট। বনানী থেকে দেওয়া হবে নেত্রকোনা ও মোহনগঞ্জগামী ট্রেনের টিকিট। সিলেট ও কিশোরগঞ্জগামী ট্রেনের টিকিট দেওয়া হবে ফুলবাড়িয়ার পুরাতন রেল ভবন থেকে।

আগামী ৫ জুন ঈদ হবে ধরে টিকিট বিক্রির পরিকল্পনা সাজিয়েছে রেল। মন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে জানান, ২২ মে বিক্রি করা ৩১ মে’র টিকিট। ২৩ বিক্রি করা হবে ১ জুনের টিকিট। ২৪ মে দেওয়া হবে ২ জুনের টিকিট। ২৫ মে বিক্রি হবে ৩ জুনের টিকিট। ২৬ মে দেওয়া হবে ৪ জুনের টিকিট।

গত বছরের ঈদুল ফিতরের সময় ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া ৩১টি আন্তঃনগর ট্রেনে আসন সংখ্যা ছিল ২৫ হাজার ৩৪৫টি। এবার তা বেড়ে হয়েছে ২৭ হাজার। রেলমন্ত্রী জানিয়েছেন, ২৭ হাজার টিকিটের অর্ধেক বিক্রি হবে মোবাইল অ্যাপ ও অনলাইনে। বাকি অর্ধেক বিক্রি হবে কাউন্টার থেকে।

রেলের কর্মকতা ও কর্মচারীদের এবং গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের জন্য ট্রেনের ১০ শতাংশ টিকিট সংরক্ষিত রাখা হয়। এ হিসেবে দুই হাজার ৭০০ আসন চলে যাবে কোটায়। কাউন্টারে বিক্রি হবে সর্বোচ্চ ১০ হাজার ৮০০ টিকিট। তবে ঈদের আগে আসন সংখ্যা আরো বাড়বে।

ঈদের আগের পাঁচ দিন ছয় জোড়া বিশেষ ট্রেন চালানো হবে। বন্ধ রাখা হবে ঢাকা-কলকাতা রুটের ‘মৈত্রী এপপ্রেস’। এ ট্রেনটি ঈদের সময় ঢাকা-খুলনা রুটে চলবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী। ঈদের দিনে শোলাকিয়া এক্সপ্রেস নামে দুই জোড়া বিশেষ ট্রেন চলবে।

রেলমন্ত্রী জানিয়েছেন, ঈদযাত্রায় সারাদেশে ৯২টি আন্তঃনগর ট্রেনের ৭০ হাজার টিকিটি বিক্রি করা হবে। লোকাল ও মেইল ট্রেনসহ সবমিলিয়ে প্রতিদিন দুই লাখ ৯০ হাজার যাত্রী পরিবহন করা হবে। কালোবাজারি ঠেকাতে ঈদযাত্রার টিকিট জাতীয় পরিচয়পত্র দেখিয়ে নিতে হবে।

তিনি জানান, একজন যাত্রী সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারবেন। কালোবাজারি ঠেকাতে স্টেশনে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ছাড়াও ভ্রাম্যমান আদালতের কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে রেল সচিব মোফাজ্জেল হোসেন, রেলের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মোঃ শাসছুজ্জামানসহ উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মতামত