বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়: অনশন কর্মসূচি সোমবার পর্যন্ত স্থগিত

অনলাই ডেস্ক: উপাচার্যের অপসারণের দাবিতে তিন দিনের জন্য অনশন কর্মসূচি স্থগিত করেছেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। বুধবার থেকে শিক্ষার্থীরা আমরণ অনশন কর্মসূচি চালিয়ে আসছিলেন। পরে বৃহস্পতিবার রাতে তাদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মিয়াসহ চার শিক্ষক। শুক্রবার বিকেলে এ কর্মসূচি তিন দিনের জন্য স্থগিতের ঘোষণা দেওয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের নিচতলায় অনশনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান সিন্ডিকেট সদস্য ও বরিশাল শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. ইউনুস, বিএম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. হানিফ ও অধ্যক্ষ স ম ইমানুল হাকিম, মুক্তিযোদ্ধা এমডি কবির ভুলু, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এসএম ইকবালসহ বরিশাল নগরীর সাত গণ্যমান্য ব্যক্তি। তারা সোমবারের মধ্যে দাবি পূরণ হতে পারে বলে আশ্বাস দেওয়ার পর শিক্ষার্থীরা অনশন কর্মসূচি স্থগিত করতে সম্মত হন। পরে বিএম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. হানিফ শিক্ষার্থীদের জুস পান করান।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি শফিকুল ইসলাম বলেন, নগরীর বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ও সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক মো. ইউনুসের আশ্বাসে তারা সোমবার পর্যন্ত অনশন কর্মসূচি স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে দাবি বাস্তবায়ন না হলে মঙ্গলবার থেকে আবারও আমরণ অনশন কর্মসূচি শুরু করা হবে। এ তিন দিনের জন্য তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবনের তালা খুলে দেবেন না।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মিয়া বলেন, আমরা আপাতত তিন দিনের জন্য অনশন কর্মসূচি স্থগিত করেছি। তবে প্রতিদিনই অবস্থান কর্মসূচি চলবে।

বিএম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ স ম ইমানুল হাকিম বলেন, ছুটিতে থাকা উপাচার্য প্রফেসর ড. ইমামুল হককে সোম-মঙ্গলবারের মধ্যে তার পূর্ণ মেয়াদে ছুটিতে পাঠানো হতে পারে। এ সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের দাবি পূরণ না হলে বরিশালের সুশীল সমাজও আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশ করে অংশ নেবে।

গত ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের প্রবেশাধিকার না দেওয়ার প্রতিবাদে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। একই দিন দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেকটি অনুষ্ঠানে এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশের এক পর্যায়ে আন্দোলনকারীদের ‘রাজাকারের বাচ্চা’ বলে গালি দেওয়ার অভিযোগ ওঠে উপাচার্যের বিরুদ্ধে। এর প্রতিবাদে ২৭ মার্চ থেকে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।

মতামত