ফুলবাড়ীতে খাল খননে সরকারী কাজে বাঁধা॥

ফুলবাড়ী দিনাজপুর প্রতিনিধি
ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ী দৌলতপুর ৪.৫০ কিমি খাল খননে প্রভাবশালী মহল কর্তৃক সরকারী কাজে বাঁধা। দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার খয়েরবাড়ী ইউনিয়ন ও দৌলতপুর ইউনিয়নে প্রায় দুই হাজার জমিতে বর্ষাকালে পানি বদ্ধতা থাকায় ২ হাজার একর জমিতে ইরি বোর ধান ও অন্যান্য ফসল আবাদ থেকে বঞ্চিত হয় এলাকার কৃষকেরা। ঐ এলাকার কৃষকরা গত ২০১৮ ইং সালে পানি নিষ্কাষনের জন্য ও জমির ফসল বাঁচানোর জন্য তারা ঐ সময় আন্দোলন করে। আন্দোলনের পরিপেক্ষিতে ফুলব্ড়াী উপজেলার তৎকালীন নির্বাহী অফিসার মোঃ এহেতেশাম রেজা ও উপজেলা কৃষি অফিসার এটি এম হামীম আশরাফ সরেজমিনে তদন্ত করে একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনের পরিপেক্ষিতে ঐ এলাকার কৃষকদের কৃষি জমি আবাদের উপযুগী করতে দৌলতপুর ও খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের পানিবদ্ধ এলাকা জরিপ করেন বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড দিনাজপুর। এরপর ৬৪ জেলার অভ্যন্তরস্থ ছোট নদী খাল এবং পূর্ণ খনন প্রকল্প ১ম পর্যায় টেন্ডার হয়। টেন্ডারে দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী উপজেলাধীন নালানপাড় খালে ০.০০ হতে ৪.৫০ কি.মি পুন:খননের কাজ গত ০৬/০২/২০১৯ ইং তারিখে শুরু হয়। কাজের শেষ তারিখ ৩১/০৫/২০১৯ ইং। কাজটি পেয়ে থাকেন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মোঃ হাসিবুল হোসেন, রবাটসনগঞ্জ, আলমনগর রংপুর। খালটি খননে ৫৩.৭০ লক্ষ টাকা। খয়েরবাড়ী থেকে প্রায় ২ কি.মি. খাল খনন পার হয়ে গেলে দৌলতপুর ইউনিয়নের কিছু অংশে গিয়ে ঐ এলাকার কিছু লোক প্রভাবশালী মহলের ইন্দনে ঠিকাদারের কাজ গত ০১/০৩/২০১৯ ইং তারিখে বন্ধ করে দেন। ফলে ঠিকাদার ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। দিনাজপুর জেলায় খাল খননের কাজে জেলা কমিটি রয়েছে। জেলা কমিটি এসব কাজ তদারক করেন।
খাল খনন কাজের বিষয়ে দিনাজপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ ফয়জুর রহমান এর ০১৭১২২৯১০৮৮ মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি ফোন গ্রহণ করেননি।
আপর দিকে দিনাজপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডর সহকারী প্রকৌশলী মোঃ নয়ন এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, কাজ বন্ধ করে দিয়েছে এলাকার কিছু লোক উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম চৌধুরী কে কাজ বন্ধ করে দেওয়ার বিষয়টি জানানো হয়েছে। তিনি বিষয়টি নিয়ে বসার কথা বলেছেন।
ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুস সালাম চৌধুরীর সাথে খাল খননে সরকারী কাজ বন্ধ করে দেওয়ার বিষয়ে কথা বললে তিনি মিটিং এ আছেন বলে জানান। একই কথা বলেন উপজেলা কৃষি অফিসার এটিএম হামীম আশরাফ। খয়ের বাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের মন্ডল জানান আমি সরকারী কাজে বাধা দিতে পারি না তবে ভালো কাজ করতে গেলে কিছু ক্ষতি শিকার হবে।
এদিকে মহেসপুর মৌজা থেকে পানি নিষ্কাসনের জন্য যে খনন কাজ শুরু হয়েছে তাতে উক্ত খননের কারনে তিন ফসলি ব্যাক্তি মালিকানাধীন জমি নষ্ট হয়ে যাবে মর্মে খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের কিসমত লালপুর, মহদিপুর, নারায়নপুর, লক্ষ্মীপুর গ্রামের কতিপয় ব্যাক্তি নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য গত ২৬/০২/২০১৯ ইং তারিখে ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দেন। বর্তমান ঐ এলাকায় খাল খননের কাজ বন্ধ রয়েছে। খাল খননের কাজ বন্ধ করে দেওয়ায় ঠিকাদারের অফুরন্ত ক্ষতি সাধন হচ্ছে বলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মালিক মোঃ হাসিবুল হোসেন সাংবাদিক কে এ কথা জানান। খাল খন নিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
ন বন্ধের বিষয়টি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তদন্ত স্বাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা

মতামত