বিয়ে করছেন মিম?

অনলাইন ডেস্ক: বিদ্যা সিনহা মিম। মডেল ও অভিনেত্রী। আজ মুক্তি পেয়েছে তার অভিনীত ছবি ‘দাগ হৃদয়ে’। এ ছবি, বর্তমান ব্যস্ততা ও ব্যক্তিগত অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা হয় তার সঙ্গে-

‘দাগ হৃদয়ে’ ছবিটি নিয়ে কেমন আশাবাদী?

ছবির সাফল্য নিয়ে আমি অসম্ভব আশাবাদী। কারণ রোমান্টিক ছবির দর্শক সবসময়ই ছিল। কিন্তু দর্শক সেই ছবিই দেখেন, যার গল্প সময়োপযোগী। ‘দাগ হৃদয়ে’ ছবিতে দারুণ একটি প্রেমের গল্প আছে, যা দর্শকের মনে দাগ কাটবে বলেই আমার ধারণা। তাছাড়া লম্বা বিরতির পর আমার কোনো ছবি মুক্তি পাচ্ছে- যেখানে দর্শক নতুন এক চরিত্রে আমাকে দেখতে পাবেন। এ ছবিতে আমার চিত্রশিল্পী চরিত্রটি দর্শকের ভালো লাগলে কাজটা সার্থক হয়ে উঠবে। এখন অপেক্ষার পালা, ছবিটি দেখার পর দর্শকের মনে কেমন সাড়া জাগাচ্ছে।

কিন্তু ছবির প্রচারণায় আপনাকে সেভাবে দেখা যায়নি। এর কারণ কী? 

গোলাম সোহরাব দোদুলের ছবি ‘সাপলুডু’ ও অনিমেষ আইচের ‘বিউটি অ্যান্ড বুলেট’ ওয়েব সিরিজের শুটিং নিয়ে ভীষণ ব্যস্ত ছিলাম। এ ছাড়া বেশ কিছুদিন থাইল্যান্ডে ছিলাম ‘থাই কারি’ ছবির শুটিংয়ে। এজন্য ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও ‘দাগ হৃদয়ে’ ছবির প্রচারণায় অংশ নিতে পারিনি। তবে এখন প্রচারণায় অংশ নিচ্ছি। সাক্ষাৎকার দিচ্ছি বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় ও টিভি চ্যানেলে। 

বিদ্যা সিনহা মিম

‘থাই কারি’ ছবির কাজ শেষ করেছেন সম্প্রতি। অভিনয়ের জন্য কলকাতার ছবিকে এতটা প্রাধান্য দেওয়ার বিশেষ কোনো কারণ আছে?

কোনো ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার আগে আমি তিনটি বিষয় মাথায় রাখি। গল্প, নির্মাতা আর চরিত্র। সেগুলো ঠিকঠাক থাকলে ছবি কোন দেশের এ বিষয়টা বড় করে দেখি না। শিল্পীদের কাজ নির্দিষ্ট মানচিত্রের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে এটা আমি বিশ্বাস করি না। অঙ্কিত আদিত্যর মতো পরিচালকের সঙ্গে অভিনয় করার ইচ্ছা এবং ছবির চরিত্রটি মনের মতো হয়েছে বলেই অভিনয়ে রাজি হয়েছি।

শুনলাম, শিগগিরই বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছেন? 

জানি না কী কারণে আজকাল অনেকেই এ প্রশ্ন করছে আমাকে। সবাইকে বলছি, যা শুনেছেন তা গুজব, সত্যি নয়। বিয়ে জীবনের একটি বড় অধ্যায়। তাই ভেবে-চিন্তে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব এবং সবাইকে জানিয়েই বিয়ের পিঁড়িতে বসব।

মতামত