সাহিত্য পাতা (বই আলোচনা)

মিনহাজুল ইসলাম মোহাম্মদ মাছুম’র “রাসূল (সা) আমার ভালবাসা” ঈমান তাজা ও মজবুত করার মত গ্রন্থ:
মোহাম্মদ ইমাদ উদ্দীনবিশিষ্ট লেখক ও কবি মিনহাজুল ইসলাম মোহাম্মদ মাছুম’র “রাসূল (সা) আমার ভালবাসা” ঈমান তাজা ও মজবুত করার মত  একটি অসাধারণ গ্রন্থ। এটি দেখতে সীরাত গ্রন্থের মত হলে কিন্তু তা নয়, বিভিন্ন সময়ে পত্র-পত্রিকা ও সাময়িকীতে লেখকের প্রকাশিত অসংখ্য নিবন্ধের সংকলন গ্রন্থ।লেখক  মিনহাজুল ইসলাম মোহাম্মদ মাছুম তার গ্রন্থে ইসলামী চিন্তাবিদ, প্রখ্যাত হাদীস বিশারদ, লেখক ও গবেষক, চট্টগ্রামের দারুল উলুম আলিয়া মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর ডক্টর এ.টি.এম.তাহের এর একটি শুভেচ্ছা বাণী স্থান দিয়েছেন।লেখক তার গ্রন্থে রাসূল (সা) এর জন্ম, আল কোরআনে রাসূল (সা) এর আগমনের উদ্দেশ্য এবং তাঁর চারিত্রিক সৌন্দর্য সহ তাঁর জীবনের বিভিন্ন ঘটনাপ্রবাহ, ইসলামের মূলনীতি সমূহ,শিরক-বিদআত সহ ইবাদতের বিভিন্ন দিক, ইভটিজিং প্রতিরোধে ইসলামের বিধান, ইসলাম, নারীমুক্তি,  ও রাসূল (সা) এর আদর্শ,  সাপ্তাহিক ছুটি বিতর্ক-আমাদের প্রাণের জুমাবার, মুসলিম উম্মাহর বিরুদ্ধে ইহুদী ষড়যন্ত্রের স্বরুপ, ইসলামের দৃষ্টিতে পরিবেশ সংরক্ষণ,  সোয়াইন ফ্লু ভাইরাস: আল কোরআন কি বলে? বিতর্কিত জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতিমালা ও ইসলামের উত্তরাধিকার আইন সহ বিভিন্ন বিষয়ে তার লেখা স্থান দিয়েছেন।লেখক  মিনহাজুল ইসলাম মোহাম্মদ মাছুম তার গ্রন্থে  সমাজে ইবাদতের  বর্তমান বাস্তব অবস্থা  তুলে ধরে বলেন, সাংস্কৃতির জগতে চলছে অপসংস্কৃতি সয়লাব। মাজারে চলছে ব্যাপক বেহায়াপনা।, শিরক-বিদআতের আসর, মদ-জুয়া-গাঁজার আসর এসব কি ইসলামী কার্যকলাপ?  আসলে ব্রাক্ষণ্যবাদীদের কালচার থেকে আমাদের লোকদের কাছে ধর্মাবরণে অনেক শিরকি কর্মকাণ্ড অনুপ্রবেশ করেছে।মাজার গুলোতে দেখা যায়, মুসলমানদের চেয়ে অন্য ধর্মের লোকজন কম নয়।ওরাতো মুশরিক,  মাজারে সিজদার সময়তো আর কে মুসলমান কে অন্য ধর্মের সেই খেয়াল কে রাখে?  
লেখক তার গ্রন্থে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, একশ্রেণী আলেম নামধারী ধর্মব্যবসায়ীদের পৃষ্ঠপোষকতায় সুন্নাতের লেবাসে সুন্নাত বিরোধী কাজ চলছে। প্রিয়নবী (সা) এর প্রেমে মশগুল নবীর বিরোধী কাজ, অথচ নবীও এসব আমল করতে বলেন নাই। সাহাবারাও করেন নাই। যে কাজ তারা  করেন নাই তা আমরা করতে যাব কোন দুঃখে?একই সাথে লেখক ও কবি মিনহাজুল ইসলাম মোহাম্মদ মাছুম’র রচিত “রাসূল (সা) আমার ভালবাসা” তার গ্রন্থে অমুসলমান ও এক শ্রেনীর মুসলমান নামধারীরা কোরবানির বিরোধীতা তথা কোরবানি নাকি অপচয়, কোরবানি মানুষের পশু শক্তিকে দমন করে না আরো উসকে দেয়, কোরবানির রক্ত দুষিত হয়ে পরিবেশ দুষিত করে, পশুসম্পদ নষ্ট হয় ইত্যাদি বলে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে আসছে তাদেরকে সমুচিত জবাব দিয়েছেন।তাছাড়া লেখক তার গ্রন্থে মুসলিম  বিশ্বের বিরুদ্ধে ব্যবহৃত ইহুদীদের ঘৃণ্য-কৌশল, ইহুদীদের নিয়ন্ত্রিত প্রচার মাধ্যমসমূহ, জাতিসংঘ এবং আমেরিকাকে ব্যবহারের মাধ্যমে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন সম্পর্কে তুলে ধরেছেন।আশা করি বিশিষ্ট লেখক ও কবি মিনহাজুল ইসলাম মোহাম্মদ মাছুম’র “রাসূল (সা) আমার ভালবাসা” গ্রন্থটি পাঠকদের ঈমান আরো জাগ্রত করে তুলবে। আর শিরক-বিদআত মুক্ত সমাজ বিনির্মাণে পথ পদর্শক হিসেবে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আল্লাহ পাক লেখকের এ প্রয়াস কবুল ও মঞ্জুর করুন। দীপ্তময় পথচলায় লেখকের প্রতি  দোয়া ও আন্তরিক ভালোবাসা জ্ঞাপন করছি। একই সাথে এই বইটির পাঠক প্রিয়তা কামনা করি

মতামত