চাঁদাবাজী, ভূমি দখল ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী বন্ধ: জাফর আলম এমপি

বাবুল হোসেন, পেকুয়া প্রতিনিধি: আপনারা নৌকার আস্থা রেখেছেন। আমি নৌকা প্রতীকের প্রাার্থী, আমি সুন্দর চকরিয়া ও পেকুয়া গড়তে চাই। এখানে অনেকেই দলের নাম ভাঙিয়ে সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি ও চিংড়ি প্রজেক্ট দখল করেন। নিরীহ মানুষের কাছ থেকে স্ট্যাম্প নেন। এরকম যাঁরা আছেন ভালো হয়ে যান, নয়তো জনগণকে সাথে নিয়ে তাদের প্রতিহত করা হবে। তাই আপনাদের আস্থা বিশ্বাসের মর্যাদা রাখবো।
সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে সাংসদ জাফর আলম বলেন, এলাকার নিরহ মানুষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করা যাবেনা। সর্ব প্রথম পেকুয়া চকরিয়ার বাসিন্দাদের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করা হবে। পেকুয়ায় একটি সরকারি কলেজ, সোনালী ব্যাংক স্থাপন করা হবে। বেকার যুবকদের জন্য সৃষ্টি হবে কর্মসংস্থান।

মঙ্গলবার (৮জানুয়ারি) বিকেলে পেকুয়া উপজেলা সদরের পশ্চিম গোঁয়াখালী সরকারি প্রাাথমিক বিদ্যালয় মাঠে পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে আয়োজিত এক বিরোচিত সংবর্ধনা সভায় এসব কথা বলেন কক্সবাজার-১ আসনে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য জাফর আলম।

পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহনেওয়াজ চৌধুরী বিটুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেমের সঞ্চালনায় এ সভায় বক্তব্য দেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা কামাল হোসেন, সদস্য মোহাম্মদ হোছাইন, আবু হেনা মোস্তাফা কামাল, গিয়াস উদ্দিন, জিএম কাশেম, উম্মে কুলছুম মিনু, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু, উজানটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম, টইটং ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম, রাজাখালী ইউপি চেয়ারম্যান ছৈয়দ নূর, বারবাকিয়া ইউপি চেয়ারম্যান বদিউল আলম ও মগনামা ইউপি চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ ওয়াসিম প্রমুখ।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য জাফর আলমকে ফুল দিয়ে বরণ করেন গোঁয়াখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এসএমসি কমিটির সভাপিত শহিদুল আলম চৌধুরী, সহ সভাপতি ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কমিটির সদস্য সাংবাদিক এম দিদারুল করিম ও সদস্য সচিব বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হেলাল উদ্দিনসহ পেকুয়ার আওয়ামী লীগ ও অংগ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী, ইউপি চেয়ারম্যান ও সুশীল সমাজের বিভিন্ন পেশাজীবি সংগঠন ক্রেস্ট ও নৌকার প্রতিকৃতি দিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। এদিকে সংবর্ধণা সভা শেষে জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য এস এম এম গিয়াস উদ্দিনের বাড়িতে চা চক্রে মিলিত হয়। এসময় জেলা, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগন উপস্থিত ছিলেন। পরে তিনি ওইদিন রাত সাড়ে ৭টায় পেকুয়া থানা প্রশাসনের উদ্দ্যেগে আয়োজিত বর্ষবরণ ও মনোজ্ঞ সাংষ্কৃতিক আনুষ্টানে যোগ দেন। সাংসদ জাফর আলেমে গাওয়া দেশাত্ববোধক ‘ এই পদ্মা এই মেঘনা এই যমুনা’ গান গেয়ে মাতিয়ে তুলেন সাংষ্কৃতি মঞ্চ।

মতামত