ঢাবির ফিন্যান্স বিভাগ থেকে পাশ করা প্রতিবন্ধী কৃষক বাবার এক সন্তানের আর্তনাদ

বঙ্গবন্ধু হল,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে…
.
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা,
.
অনগ্রসর কৃষক সমাজের প্রতিনিধি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,ফিন্যান্স বিভাগ থেকে পাশ করুয়া সরকারি চাকরি প্রত্যাশী হিসাবে আমি আপনাকে কিছু কথা বলতে চাই।
.
.
আমার বাবা একজন প্রতিবন্ধী কৃষক।আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,ফিন্যান্স বিভাগ থেকে পাশ করেছি।
কয়েক দিন আগে কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় বজ্রপাতে এক কৃষক মারা গেলো।মৃত্যু যন্ত্রনার সময় সে কীভাবে ধানের চারা গুলো বুকে আগলে রেখেছিল।কতটা করুন দৃশ্য, দৃশ্য টি বার বার ভেসে আসছে।
.
প্রতিবন্ধী বাবার প্রচেষ্টা,বড় ২ ভাই এর পড়ালেখা না করা আর ছোটবেলায় দায়িত্ব নেওয়া ছোট কাকার বদৌলতে ৫ ভাই এর মধ্যে আমারা ছোট ৩ ভাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর মত জায়গায় পা রাখতে পেরেছি।আমি ফিন্যান্স বিভাগ থেকে পাশ করেছি।ছোট ভাই একাউন্টিং বিভাগে এমবিএ করছে আর এক ভাই তথ্য বিজ্ঞানে মাস্টার্স করছে। বলতে গেলে আমরা ৩ ভাই ই চাকরি পাওয়ার জন্য পড়ালেখা করছি।
.
আচ্ছা,আপনার কাছে কী মনে হয় কৃষক বলতে মাঠের পর মাঠ জমি আছে,আর যে বছরে কয়েকশো মন ধান বিক্রি করে?বাস্তবতা হচ্ছে কোন রকমে খেয়ে বেঁচে দিন পাড় করে আর ছেলে মেয়েদের শত কষ্টেও পড়ালেখা টা করানোর চেষ্টা করে যদি বংশানুক্রমিক ভাবে চলে আসা অবস্থার কিছু টা উন্নতি হয়। জানেন কী?
কতটা বাস্তবতা একটা কৃষক পরিবার থেকে পড়াশোনা করা?আমার মনে হয় সব কৃষক পরিবারের ছেলে মেয়েই স্বীকার করবে জীবনে একাধিক বার পড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়।ভাবতে পারেন অজ পাড়া গাঁ থেকে যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে আসেন ,স্কুলের ফার্স্ট বয়/গার্ল হয়তো সেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সবচেয়ে ভালো ফল করুয়া শিক্ষার্থী,কত টা প্রত্যাশা করে তার সেই দরিদ্র সমাজ!
.
আপনি জানেন কী? একজন কৃষক কোন রকমে তার ছেলে মেয়েকে এস এস সি পাশ করালেও তার কপালে কী বর্তমান রেট ৮/১০ লাখ টাকার কমে পুলিশ,বিজিবি বা কোন সরকারি চাকরি কী পাওয়া সম্ভব?সূর্য পশ্চিম দিক থেকে উঠলে সম্ভব না।আমার প্রশ্ন দেশে ৮ম শ্রেণি,এস এস নি,এইচ এস সি পাশ দিয়ে টাকা ছাড়া কোন চাকরি হয়?হলে কে বা কারা পায়?
.
আমার একটা বাস্তব অভিজ্ঞতার কথা বলি।আমার ৫ ভাই এর সবার বড় ভাই এর জন্য আমাদের গ্রামের যে প্রাইমারি স্কুল সেই খানে দপ্তরী চাকরির জন্য আজ থেকে সাড়ে চার বছর আগে সাড়ে ৫ লাখ টাকা দিয়ে রেখেছি অই সময়ের বাস্তবতায়।সামনের মাসে হবে,২/৩ মাসের মধ্যে হবেই এই ভাবে চলছে।ঐ স্কুলে আমরা জমিদাতা।১৯৭১ইং এ প্রতিষ্ঠিত আমাদের ২ কাঠা জমি দেওয়া আছে।হ্যাঁ,জমি বিক্রি করে অনেকের কথায় অনেকটা না বুঝেই টাকাটা দিয়েছিলাম।
.
জীবনের প্রতি পদে পদে লড়াই করে ছেলে মেয়ে আজ সম্মান পাশ করা কৃষকের ছেলে আজ সবচেয়ে কঠিন বাস্তবতার সম্মুখীন। ছোট বেলা থেকে বইয়ে পড়া “সব সাধকের বড় সাধক আমার দেশের চাষা”আর শাহবাগ রাস্তার মোড়ে বা ঢাকার রাজপথে প্রায়ই ঝুলতে থাকা সোনালী ধান ও কাস্তে হাতে কৃষক উপরে লেখা
.“যতদিন তোমার হাতে দেশ,পথ হারাবে না বাংলাদেশ”.
দেশমাতা এই সব কত কী সত্য?কথা গুলি হৃদয় থেকে না কি কথার কথা, মিথ্যে স্বপ্ন? সময় পেয়ে কোন দিন একটু ব্যাখ্যা করবেন কি?
.
বেসরকারি চাকরি করবো!আমার চাচা,মামা,খালুর কী প্রাইভেট ফার্ম আছে যে আমার সার্টিফিকেট গুলি দেখে ৩০/৪০ হাজার টাকায় আমায় নিয়ে নিবে!চাচা খালুর দরকার কী।মাত্র এস এস সি পর্যন্ত পড়ুয়া এখন ১৪ হাজার টাকা বেতনে চাকরি করছে ,তার সাথে অই বেতনে চাকরি করবো জন্যই কী এইচ এস সি পাশ, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স,মাস্টার্স করেছি???
.
উদ্যোক্তা হওয়ার কথা বলবেন?সে তো হওয়াই যায়।আজ ই যদি দু তিনশ টাকার বাদাম কিনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ঘোরে ঘোরে বিক্রি শুরু করি কেও নিষেধ করবে না।যদি নতুন ব্যবসায় ২/৪ লাখ টাকা লাগে!আচ্ছা বাংলাদেশ ব্যাংক এর বিধান অনুযায়ী উদ্যোক্তা ঋন কেও পায়?জানতে চাই।আমি এলাকায় দেখেছি ২০ হাজার টাকা কৃষি ঋন তোলতে কয়েক হাজার টাকাই ঘুষ দেওয়া লাগে।তাহলে আমার কাছে যেহেতু কোন টাকা নাই সেজন্য আগে যাতে ঘুষ যাতে দিতে পারি অই ঘুষ-ঋন দরকার,পরে আমি যে কাজ হাঁস চাষ,মাছ চাষ,ছাগল পালন,ভেড়া পালন ইত্যাদি অই ঋন দরকার।
জনগণের প্রদত্ত ৪ লাখ ২৬৬ কোটি টাকার বাজেট থেকে উদ্যোক্তা হতে ঘুষ-ছাড়া উচ্চ শিক্ষিত বেকাররা ঋন পায় কী?
.
সরকারি চাকরির কথা বলি।আমাদের মত সমাজের দরিদ্র মানুষ বিশ্বাস ই করে না যে টাকা ছাড়া চাকরি হয়।আমিও দেখেছি ৮ম শ্রেণি পাশ বা এস এস সি বা এইচ সি পাশে কোন চাকরি ৫/৭/৮ লাখ টাকা ছাড়া হয়।কিন্তু আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে দেখেছি কিছু চাকরি ১ম বা ২য় বা ৩য় শ্রেনির কিছু চাকরি টাকা ছাড়াই হয়।কিন্তু কথা হচ্ছে আমি কি পারবো আমার সেই সমাজের ভুল ভাঙতে যে টাকা ছাড়াও চাকরি হয়,সেই সুযোগ রেখেছেন কী?রাখলে সেই টা কত টুকু রেখেছেন?
.
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনাকে মা মনে করেই বলছি আপনি ৫ টি আপেল জন ৫০০০ জন কে ভাগ করে খেতে বলে একই হাতে কীভাবে বাকী ১০ টি আপেল মাত্র ৫০ জন এর কাছে তুলে দেন!আপনি তো বঙ্গবন্ধু কন্যা।অসমাপ্ত আত্মজীবনী,কারাগারের রোজনামচা তে পড়েছি আমাদের জাতির পিতা ছোটবেলায় ঘরে ঘরে যেয়ে মুষ্টি চাউল ও তোলেছেন মানুষ কে সাহায্য করার জন্য,সারাজীবন সংগ্রাম করে গেছেন বৈষম্যের বিরুদ্ধে।ঘোষনা করেছিলেন পৃথীবি আজ দু ভাগে বিভক্ত শোষক আর শোশিত,তিনি শোষিতের পক্ষে। বঙ্গবন্ধু কে নিয়ে বই পড়া,ইন্টারনেট,ইউটিউবে তার ভাষণ শোনা,তার আদর্শ নিয়ে কথা বলা কী আমাদের অন্যায়?
.
দেশরত্ন,আমরা চাই অনগ্রসর সমাজ কে সামনে আনতে সরকারি চাকরিতে কোটা প্রয়োগ করুন।আচ্ছা মা,সৃষ্টিকর্তা কী নারী-পুরুষ,কুলি মজুর,কৃষক,উপজাতি,প্রতিবন্ধী বা স্থান নির্বিশেষে মেধা দেয় নি?প্রতিবন্ধী ছাড়া কেও চাইলে এই মেধার প্রয়োগে বাধা আছে কী?
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,আমরা চাই আপনি বঙ্গবন্ধু কন্যা হিসাবে আমাদের ৫৬% কোটা বৈষম্য থেকে মুক্ত করুন।আজ উঁচু স্তর থেকে কৃষক শ্রমিক তার ছেলে মেয়েকে পড়ালেখা করাচ্ছে।একজন কৃষক শ্রমিকের ছেলে মেয়েও যাতে সুযোগ পায় তা নিশ্চিত করুন।বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শ্রেষ্ঠ সম্মান নিশিত করুন।তাদের সব ধরনের রাষ্ট্রীয় সুযোগ দিন,যে গুলি আছে তা আরো বৃদ্ধি করুন।
.
মা হিসাবে প্রশ্ন করি আপনি কী মনে করেন ২ লাখ সনদ ধারীই মুক্তিযোদ্ধা?এছাড়া আর মুক্তিযোদ্ধা নেই?আমার কাকা বঙ্গবন্ধু কে যে দিন হত্যা করেছিল অই দিন সনদ চুলায় দিয়ে পোড়ে ফেলেছিলেন।তিনি অমুক্তিযোদ্ধা হয়ে গেলেন?মুক্তিযুদ্ধে যেমন ৩০ লাখ শহীদ হয়েছে,এরকম সনদহীন আরো অনেক মুক্তিযোদ্ধা রয়ে গেছেন যারা সনদ নেয় নি কোন দিন সনদ চাইবেও না।আপনি কীভাবে মুক্তিযোদ্ধা থেকে তার সন্তান,তার সন্তান থেকে আবার পরবর্তী প্রজন্ম কোটা দিচ্ছেন যেখানে আমরা যুগের পর যুগ বঞ্চিত হচ্ছি?ওরা মুক্তিযোদ্ধাদের নাতি-পুতি বলেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা আদর্শে বিশ্বাস করে এই টা কত টা যৌক্তিক?একটা পরিবারে কয় টা চাকরি লাগে অনগ্রসর থেকে অগ্রসর হতে?মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ সমুন্নত রাখতে অবিলম্বে ৫৬% কোটা সংস্কার করুন,২% কোটাধারী ছেলে ছাড়াও আপনার যে আরো ৯৮% কোটাহীন ছেলেমেয়ে আছে তাদের কথা ভাবুন।আপনার কাছে আকুল আবেদন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে নাতি-পুতি কোটা বাতিল করুন।
.
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী খন্দকার মোস্তাক যদি মুক্তিযুদ্ধের কয়েক দিনেই রুপ বদলাতে পারে,আপনি স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর পর্যন্ত নাতি-পুতিকে যে কোটা দিয়ে যাচ্ছেন কেন দিচ্ছেন?ওদের অবদান কী?শত বছর পরেও ভালো মানুষের ঘর থেকে যদি ভালো মানুষ ই জন্ম নিতো তাহলে পৃথীবিতে এত জঞ্জাল থাকার কথা না।তরুন প্রজন্ম কীভাবে নিচ্ছে ,ভেবে দেখছেন কী?
.
তরুন প্রজন্ম আর মুক্তিযোদ্ধের চেতনা কে পরস্পর মুখোমুখি দাঁড় করানো কী খুব ভালো কাজ হবে?প্রশ্ন রাখলাম।
.
যদি ৫৬% কোটা সংস্কার নাই করুন,তাহলে সংবিধান সনশোধন করে কৃষক,জেলে,শ্রমিক সব ধরনের মধ্য ও নিম্নবিত্ত শ্রেণির মানুষের শিক্ষা অধিকার ফিরিয়ে নিন,রোহিঙ্গাদের মতো আমার মতো ২৬ লাখ উচ্চ শিক্ষিত বেকারের নাগরিকত্ত বাতিল করুন।না হয় আমাদের গুলি করুন।আমরা মরে গিয়ে রফিক,জব্বার,শফিউর,আসাদ,শহীদ জননী জাহানারা ইমামের ছেলে শফী ইমামের ন্যায় জাতির পিতার অর্জিত স্বাধীন বাংলার মাটিতে ঘুমিয়ে থাকবো,বেঁচে থাকবো লাখো তরুন আর বাঙালির হৃদয়ে।
.
মাহবুবুর রহমান,
২৬ লাখ শিক্ষিত বেকারের প্রতিনিধি হিসাবে।
৫০২ নং রুম, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

মতামত