ডাকাতিয়া থিয়েটার’র ১০ম বর্ষে পর্দাপণ

আজিম উল্যাহ হানিফ:
বৃহত্তর লাকসাম উপজেলার ( লাকসাম, মনোহরগঞ্জ, নাঙ্গলকোট, লালমাই উপজেলা) বেশ   কিছু সংখ্যক সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক মনা ব্যক্তিদের নিয়ে ২০০৮ সালের ১৪ নভেম্বর লাকসাম পৌর শহরের উত্তর বাজারে প্রতিষ্ঠিত হয় ডাকাতিয়া থিয়েটার নামক একটি নাট্য সংগঠন। প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ৫ জন। তারা হলেন সুশীল আচার্য্য, রাজীব সাহা, মহিন উদ্দিন, মনির হোসেন, জয় সাহা। এরপর থেকে ব্যপ্তি শুরু হয়ে বর্তমানে এর সদস্য সংখ্যা ৫০ এর উপরে। বর্তমান কমিটিতে রয়েছে ২১ জন। মেয়াদকাল ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত তিন বছর মেয়াদী। পৃষ্ঠপোষকতায় শুরু থেকে রয়েছে এডভোকেট রফিকুল ইসলাম হিরা। কমিটির নাট্য সদস্যরা হলেন জাহাঙ্গীর আলম, সুশীল আচার্য্য, জয় সাহা, রাজীব সাহা, মহিন উদ্দিন রণি, মনির হোসেন (যিনি কুমিল্লা বেতারে চাকরিরত), আবদুল জলিল, বাবু প্রণয় রায়, ধনঞ্জয় চক্রবর্তী, মোহন দেবনাথ, পলক মজুমদার, সমীর বর্মণ, খোরশেদ আলম, জুয়েল, মোফাজ্জল, খোরশেদ, নয়ন দেবনাথ, প্রিয় রঞ্জন চক্রবর্তী, রিয়াজ উদ্দিন, আলা উদ্দিন, লিটন, রায়হান মজুমদার, টিটু, লিটন দেবনাথ, বিমল দেবনাথ, কল্পনা আক্তার, মিনু আক্তার, মনি আক্তার, টুম্পা আক্তার, কুসুম কলি, আফসানা আক্তার, বৃষ্টি, বিচিত্রা, তাবাসসুম মজুমদার, রোকসানা ইয়াসমিন মনি, সুমি আক্তার প্রমুখ। সংগঠনটি মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় এবং অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্বদ্ধু এই নাট্য সংগঠনের লক্ষ্য উদ্দেশ্য হ”েছ বাঙ্গালী কৃষ্টি সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে শিকড় থেকে আঁকড়ে ধরে মঞ্চে তুলে আনা। সংগঠনের দীর্ঘ ১০ বছরে বেশ কয়েকটি নাটক মঞ্চায়ন করা হয়। নাটকগুলো হলো সুশীল আচার্য্যের রচনায় আমাদের ফুলতলী, রাজিব সাহার রচনায় ময়না, সুশীল আচার্য্যরে রচনায় ভুল সংশোধন, সুশীল আচার্য্যের রচনায় ডাকাতিয়া তীরে। তবে সারি সারি লাশ মঞ্চায়ন হয় ২ বার, আমাদের ফুলতলী ১০ বার, ক্ষ্যাপা পাগলার প্যাচাঁল ৮ বার,  ডাকাতিয়া নদীর ইতিকথা ৭ বার, নৌকা বিলাস ৩ বার, বেয়নেট ৫ বার, ভাষা থেকে স্বাধীনতা ৩ বার, ময়না ৮ বার, বাপের বেটা কাইস্যার বাপ ২ বার, চিত্ত বিনিময় ২ বার, মানিক জোড় ৪ বার, ডাকাতিয়ার তীরে ১ বার, অশোকানন্দ ৪ বার মঞ্চায়ন করা হয়। সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে জানা যায়, বিগত ১০ বছরে যে সকল নাট্য শিল্পীর সহযোগিতা পেয়েছেন, তারা হলেন ড. মুকিদ চৌধুরী, এজহারুল হক মিজান, শাহজাহান চৌধুরী, তুহিন অবন্ত, তাজুল ইসলাম এমপি, এডভোকেট রফিকুল ইসলাম হিরা, ভাষাসৈনিক আবদুল জলিল, কবি এস এম আবুল বাশার, মেয়র প্রফেসর আবুল খায়ের, মোশাররফ হোসেন মজুমদার, মোহাম্মদ আলী হায়দার, সামিনা লুৎফা নিত্রা, কাজী রোকসানা রুমা প্রমুখ। ঐতিহ্যবাহী নাট্য সংগঠন ডাকাতিয়া থিয়েটারের উদ্যোগে ২০০৯ সাল থেকে অদ্যবধি বেশ কয়েকটি সংকলন ও নাট্য মঞ্চায়ন উপলক্ষ্যে বেশ কয়েকটি স্মরণিকা ও ক্রোড়পত্র প্রকাশিত হয়। তার মধ্যে একটি ২০০৯ সালে প্রকাশিত হয়েছে যা সংগ্রহ করা হয়েছে। সংকলনটি উৎসর্গ করা হয়েছে লাকসাম পৌরসভার মিশ্রি গ্রামের সাদেকুর রহমান ও আজিজুন্নেছার ছেলে গীতিকার তোফায়েল হোসেনকে। ডাকাতিয়া থিয়েটারের সংকলন ও নাটক মঞ্চায়ন করতে গিয়ে নাট্যকর্মীরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন লাকসামের সাংসদ তাজুল ইসলাম এমপি, লাকসাম উপজেলা প্রশাসন, লালমাই (সদর দক্ষিন) উপজেলা প্রশাসন, লাকসাম পৌরসভা প্রশাসন, উত্তর লাকসাম সমাজ উন্নয়ন সং¯’া, লাকসাম পাবলিক হল কর্তপক্ষ, বাবু সুভাষ ভৈামিকের কাছে, কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান, লাকসাম উপজেলা নিবার্হী অফিসারসহ লাকসাম-কুমিল্লার পত্র-পত্রিকার কর্তপক্ষকে। প্রতিষ্ঠাতা  সুশীল আচার্য্য’র সাথে কথা বলে জানা গেছে, ওনাদের হাতে বেশ কিছু নাটক ও কাজ আছে। যা ধির¯ি’র হয়ে শুরু করবেন। এই জন্য তিনি সংগঠনের সকল সদস্য তথা কমিটির লোকদের চাঙ্গা ও নিয়মিত রাখতে সভা করে যা”েছন।

মতামত