সুনামগঞ্জে পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় দুজন নিহত

Spread the love

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের দুটি উপজেলায় পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় এক বৃদ্ধ ও যুবক নিহত হয়েছে। জগন্নাথপুরে মোটর সাইকেল চাপায় অছরত উল্লাহ (৭৫) নামের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। তিনি উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের খাশিলা গ্রামের মৃত ফয়েজ উল্লার ছেলে। অপর দিকে সুনামগঞ্জ- সিলেট আঞ্চলিক মহা-সড়কে মোটর সাইকেল দূর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী সুভন নন্দি (১৯) নামের এক কলেজ ছাত্র  মৃত্যু হয়েছে।

সে গোবিন্দগঞ্জস্থ জোনাকী ষ্টোডিওর মালিক,বিশ্বনাথের লামাকাজি ইউনিয়নের দিঘলী একানিধা গ্রামের মৃত সুভাষ নন্দির পুত্র। জানাযায়,১৩জানুয়ারি সন্ধ্যায় জগন্নাথপুর-সুনামগঞ্জ সড়কের খাশিলা গ্রাম এলাকার লিটনের দোকান নামক স্থানে দ্রুতগামী একটি মোটর সাইকেলের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই পথচারী বৃদ্ধ অছরত উল্লার মর্মান্তিক মৃত্যু হয়।

জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে মৃত দেহের সুরতহাল করছেন বলে জগন্নাথপুর থানার এসআই মনিরুজ্জামান জানান।অপর দিকে,সোমবার দুপুরে সড়কের সাহেবনগর এলাকায় সকালে সুভন নন্দি ও আকাশ ঘোষ,পার্থ ও রোদ্র ৪বন্ধ মিলে দু’মোটর সাইকেল যোগে বিশ্বনাথের ভুরকি এলাকায় বেড়াতে যায়।

দুপুরে সেখান থেকে বাড়ি ফেরার পথে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের সাহেবনগর এলাকায় পৌঁছামাত্র ভাঙ্গা রাস্তার গর্তে পড়লে অপর মোটর সাইকেলের সাথে ধাক্কা লাগে। এসময় মোটর সাইকেলের চালকসহ দু’আরোহী ছিটকে পড়লে বিপরিত দিক থেকে আসা যাত্রীবাহী লেগুনা (নং-সিলেট-ছ-১১-২০৮০) এর সাথে ধাক্কা লেগে ঘটনাস্থলেই দু’জন আহত হয়।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক সুভন নন্দি (১৯)কে মৃত ঘোষণা করেন। এঘটনায় মোটর সাইকেলের চালক, একই গ্রামের আনন্দ ঘোষের পুত্র কলেজ ছাত্র আকাশ ঘোষ (১৯) আহত হয়।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে  হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রত্যেক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন,দূর্ঘটনা থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে লেগুনায় থাকা চালকসহ ১৪জন যাত্রী। সড়কের জয়কলস হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ আমির উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।